মেইন ম্যেনু

ছয় তলা থেকে ছুঁড়ে ফেলার পরও বেঁচে গেছে শিশুটি

জন্মের সাথে সাথেই চরম নিষ্ঠুরতার সাথে পরিচয়। খোদ জন্মদাতা মা-ই ছ তলা ভবন থেকে ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছে নবজাতককে।

আর এই ঘটনাটি ঘটেছে রাজধানীর বেইলী রোডে। আশপোশের- মানুষ শিশুটিকে উদ্ধার করে নিয়ে যায় আদ-দ্বীন হাসপাতালে। নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে থাকলেও শিশুটি প্রাণে বেঁচে গেছে বলে জানান তার চিকিৎসক। আর মাকে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

জন্মই যেন তার আজন্ম পাপ। পৃথিবীর আলো হাওয়ায় আসার পর, যখন মায়ের বুকের ওম নেবার কথা, তখন তার ঠাঁই হয়েছে কংক্রিটের ছাদে। সমাজের লজ্জা থেকে বাঁচতে, মা নিজেই ছুঁড়ে ফেলেছে তার নাড়ী ছেঁড়া ধনকে। কিন্তু ছয় তলা থেকে পড়লেও, বেঁচে গেছে বিস্ময়করভাবে।

যে বাসা থেকে ফেলা হয় শিশুটিকে সেখানে গিয়ে দেখা যায়, মূল দরজায় ঝুলছে তালা। পরে ভেতর থেকে একজন বেরিয়ে এলেও, চাননি কথা বলতে।

ভাগ্যজোরে বেঁচে যাওয়া শিশুটিকে ভর্তি করা হয়েছে আদ-দ্বীন হাসপাতালের। রাখা হয়েছে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে। চিকিৎসকরা জানান, শিশুটির একটা পা ভেঙ্গ গেলেও, এখন সে শঙ্কামুক্ত।

এদিকে, নবজাতকের মা বিউটি আক্তারকে পুলিশ উদ্ধার করে ভর্তি করেছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। যে বাসা থেকে শিশুটিকে ফেলা হয়েছে, সে বাসার গৃহকর্মী বিউটি। তার দাবি, নবজাতকের জন্মের জন্য দায় তার দুলাভাইয়ের।