মেইন ম্যেনু

জঙ্গিবাদ দমনে র‌্যাবের নতুন অ্যাপস

জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদসহ সকল ধরণের অপরাধ দমনে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) চালু করেছে নতুন মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ‘রিপোর্ট টু র‌্যাব’। এই অ্যাপসটি ব্যবহার করে যে কোনো তথ্য দাতা খুব সহজে র‌্যাবকে অপরাধ ও অপরাধী সম্পর্কে তথ্য দিতে পারবেন।

এক্ষেত্রে তথ্যদাতার নাম পরিচয় গোপন করতেও পারবেন অথবা তথ্যদাতা চাইলে পরিচয় প্রকাশেরও সুযোগ থাকবে।

সোমবার বিকেল পৌনে ৫টায় র‌্যাব সদর দফতরের সম্মেলন কক্ষে অ্যাপসটির উদ্বোধন করেন র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত মহাপরিচাক (এডমিন) আব্দুল জলিল মণ্ডল, অতিরিক্ত মহাপরিচাক (অপারেশন) আনোয়ার লতিফ খান, ডিরেক্টর (ইনটেলিজেন্স) আবুল কালাম আজাদ, ডিরেক্টর (অপারেশন) কে এম আজাদ ডিরেক্টর (লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং) মুফতি মাহমুদ খান, ডিরেক্টর কমিউনিকেশনস ফরহাদ হোসেন মাহমুদ, ডিরেক্টর (ট্রেনিং) জসিম উদ্দিন।

অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ডিরেক্টর কমিউনিকেশনস ফরহাদ হোসেন মাহমুদ বলেন, তথ্যদাতা বা সাধারণ যে কোনো নাগরিক অ্যাপসটি ব্যবহার করে জঙ্গি সন্ত্রাস, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ইউনিউব, টুইটার, ফেইসবুকসহ), নিখোঁজ, খুন ডাকাতি, মাদক অপহরণসহ যেকোনো অপরাধের তথ্য নিকটস্থ র‌্যাব ব্যাটালিয়নকে জানাতে পারবেন। তথ্যদাতার তথ্য র‌্যাব সার্ভার স্বয়ংক্রিয়ভাবে দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যাটালিয়নের কাছে পৌঁছে দেবে।

অ্যাপসটি ব্যবহার করতে চাইলে যে কোনো ব্যক্তি র‌্যাবের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.rab.gov.bd অথবা গুগল প্লে স্টোর থেকেও ডাউনলোড করতে পারবেন। অ্যাপসিট একটিভেট করার জন্য একটি ইন্টারনেট সংযুক্ত এনড্রোয়েট মোবাইল ফোন লাগবে।

অ্যাপসটিতে অপরাধের ধরণ নির্বাচন করার ক্ষেত্রে রিপোর্ট ক্রাইম ও ফোন নাম্বার থাকবে। সেখানে সিলেক্ট ক্রাইম অপশনে ক্লিক করলে, টেরোরিস্ট অ্যাটাক, টেরোরিস্ট ইনফরমেশন, মিসিং পারসন ইনফরমেশন (নিখোঁজ ব্যক্তি), স্যোশাল মিডিয়া ওয়াচ, মার্ডার, রোবারি, ড্রাগ, কিডন্যাপ এবং অন্যান্য অপরাধেরও একটি ঘর দেখা যাবে। সেখানে অপরাধের ধরণ অনুযায়ী যে কেউ তা ক্লিক করলেই নির্বাচিত হবে।

এরপর অপরাধ কিংবা অপরাধীর ঘটনাস্থলে জেলা ও থানা নির্বাচন অপশনে গিয়ে তা পূরণ করবেন। এরপর অপরাধের দৃশ্য কিংবা ধরণ বর্ণনা করার যাবে। সর্বশেষ সেন্ড বাটনে ক্লিক করলেই নিকটস্থ র‌্যাবের এলাকা পাঠানো যাবে।