মেইন ম্যেনু

জঙ্গি আবিরের জানাজায় শুধুই একজন

দেশের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় ঈদের দিন পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় নিহত জঙ্গি আবির রহমানকে পাঁচদিন পর কিশোরগঞ্জ পৌর কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় কড়া পুলিশি প্রহরায় আবিরকে দাফন করা হয়।

এর আগে কবরস্থানের সামনে আবিরের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার নামাজ পড়েন কবরস্থানের তত্ত্বাবধায়ক মাওলানা মাহতাব উদ্দিন। তবে জানাজায় তিনি ছাড়া অন্য কেউ অংশ নেননি।

গত ৭ জুলাই ঈদের দিন সকালে চর শোলাকিয়া এলাকায় আজিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের কাছে পুলিশ চেকপোস্টে পুলিশের ওপর জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে। এতে দুই পুলিশ, স্থানীয় এক গৃহবধূ ও হামলাকারী জঙ্গি আবির রহমান নিহত হয়। ঘটনার পর থেকে আবির রহমানের মরদেহ বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছিল।

নিহত আবিরের বাড়ি কুমিল্লা জেলার দেবীদ্বার উপজেলার ত্রিবিদ্যা গ্রামে। তাঁর বাবার নাম সিরাজুল ইসলাম। তিনি ঢাকার বসুন্ধরা এলাকায় থাকেন বলে গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। আবির ঢাকার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর ছাত্র ছিলেন।

কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোশাররফ হোসেন জানান, পরিবারের সদস্যরা আবির রহমানের মরদেহ নিতে না চাওয়ার কারণেই তাঁকে কিশোরগঞ্জে দাফন করার সিদ্ধান্ত হয়।