মেইন ম্যেনু

জন্মদিনে শরণার্থী স্কুল খুললেন মালালা

উনিশে পা দিলেন বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাই। লেবাননে রবিবার ১৮তম জন্মদিন উদযাপন করেছেন পাকিস্তানী এই শিক্ষাকর্মী। জন্মদিনে তিনি সিরিয়ার শরণার্থী বালিকাদের জন্য স্কুল খুলেছেন।

স্কুলটির উদ্বোধন ঘোষণার সময় মালালা আবারও বলেছেন, ‘বুলেট নয়, বই’ চাই। বিশ্বনেতাদের উদ্দেশে মালালা বলেন, বুলেট নয়, বইয়ের জন্য বিনিয়োগ করুন।

এক প্রতিবেদনে রবিবার এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

খবরে বলা হয়, লেবাননের বেকা উপত্যকায় শরণার্থী বালিকাদের জন্য স্কুল খুলেছেন মালালা। এর অর্থায়ন করবে মালালা ফান্ড।

স্কুলটিতে ১৪ থেকে ১৮ বছর বয়সী বালিকাদের পড়বার সুযোগ দেওয়া হবে। সর্বমোট ২০০ বালিকাকে ধারণ করতে পারবে মালালার এই স্কুল।

মালালা বলেছেন, ‘বিশ্ব শিশুদের হয়ে কথা বলার জন্য অ্যাডাল্ট হিসেবে আজকে আমার প্রথম দিন। এই দিনে বিশ্বনেতাদের কাছে আমি একটাই দাবি করি—আপনারা বুলেট নয়, বইয়ের জন্য বিনিয়োগ করুন।’

গৃহযুদ্ধের কারণে সিরিয়ার ৪০ লাখ মানুষ দেশছাড়া হয়েছেন। এদের মধ্যে লেবাননে রয়েছেন ১২ লাখ শরণার্থী।

প্রসঙ্গত, মালালা ইউসুফজাই ২০১৪ সালে শান্তিতে নোবেল পুরস্কারে সম্মানিত হয়েছেন। তার সঙ্গে যৌথভাবে নোবেল পান ভারতের শিশু অধিকারকর্মী কৈলাস সত্যার্থী।

এর আগে ২০১২ সালের অক্টোবরে পাকিস্তানে তালেবানের গুলিতে গুরুতর আহত হন মালালা। চিকিৎসার জন্য তিনি সপরিবারে যুক্তরাজ্য যান। বর্তমানে সেখানেই তিনি লেখাপড়া করছেন। সঙ্গে বিশ্বের শিশুদের জন্য, বিশেষত বালিকাদের শিক্ষার অধিকার প্রতিষ্ঠায় লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন মালালা।