মেইন ম্যেনু

জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতির ৫ ভুল ধারণা

চীনকে ছাড়িয়ে কয়েক বছরের মধ্যেই বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দেশ হতে যাচ্ছে ভারত। আর গত ১১ জুলাই ছিল বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস। বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষ্যে জন্ম নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা সম্পর্কে পাঁচটি ভুল ধারণার কথা জানিয়েছে ভারতের এনডিটিভি৷
এনডিটিভির প্রতিবেদনে জন্মনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা নিয়ে যে ৫টি ভুল ধারণা উঠে আসে সেগুলো হচ্ছে:

১. আইইউসি সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা লোপ করে
অনেকেই ‘ইন্ট্রাইউটেরাইন কন্ট্রাসেপশন’ বা আইইউসি ব্যবহার করতে চান না, কেননা তাদের ধারণা জরায়ুর মধ্যে টি-শেপের একটি ডিভাইস বসানো হলে ভবিষ্যতে চাইলেও সন্তান জন্মদেয়া কঠিন হয়ে পড়বে৷ কিন্তু চিকিৎসকরা বলছেন, এটা ভিত্তিহীন ধারণা৷ আর ভবিষ্যতে আইইউসি পদ্ধতি ব্যবহার করা নারী অন্যদের মতোই সন্তান নিতে পারবেন৷ এই পন্থা যেকোন বয়সের, এমনকি যাদের কোনো সন্তান নেই এমন নারীদের জন্যও কার্যকর৷

২. জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি খেলে ওজন বাড়ে
জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ির জটিল রাসায়নিক গঠন যা ভ্রুণের বৃদ্ধি রোধ করে, কারো কারো ক্ষেত্রে ওজন বাড়াতে কিছুটা ভূমিকা রাখতে পারে৷ তবে তার মানে এই নয়, যে কোনো নারী, যিনি কিনা বড়ি গ্রহণ করেন, তার ওজন বেড়ে যাবে৷ ওজন আরো অনেক কারণে বাড়তে পারে৷

৩. জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি গ্রহণে মাঝেমাঝে বিরতি দিতে হয়
মেয়েরা চাইলে যতদিন খুশি ততদিন জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি খেতে পারেন, কারণ এটা পুরোপুরি নিরাপদ৷ আর যখন গর্ভবতী হতে চাইবেন, তখন পিল ছাড়লেই চলবে৷ তবে আপনার চিকিৎসক যে বড়ি খেতে বলেন, সেটা খাওয়া সবচেয়ে নিরাপদ৷

৪. যাদের ওজন বেশি বা ধূমপান করেন, তাদের বড়ি খাওয়া উচিত নয়
যারা অনেক ধূমপান করেন, তাদেরক্ষেত্রে সাধারণ বড়ি কাজ নাও করতে পারে৷ কারণ বেশিমাত্রায় ধূমপান সাধারণ বড়ির কার্যক্ষমতা নষ্ট করে দেয়৷ তবে তাদের জন্য উচ্চমাত্রার বড়ি রয়েছে যা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী গ্রহণ করা যেতে পারে৷

৫. ইসি বড়ি আর গর্ভপাত বড়ি একই জিনিস
‘এমার্জেন্সি কন্ট্রাসেপশন’ বা ইসি বড়ি গর্ভপাত বড়ি নয়৷ এটি গর্ভধারণ প্রতিরোধ করে এবং অরক্ষিত যৌনমিলনের পাঁচদিন পর অবধি গ্রহণ করা যায়৷ আর একজন নারী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর যদি ইসি বড় গ্রহণ করেন, তবে তা কোনো ফল বয়ে আনবে না৷






মন্তব্য চালু নেই