মেইন ম্যেনু

জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারণে শ্যামনগরে চিংড়ীতে মড়ক

জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারণে শ্যামনগরে সাদা সোনা নামে খ্যাত চিংড়ীতে মড়ক।প্রচন্ড তাপদাহ,হঠাৎ বৃষ্টি,পানির গভীরতা কমে যাওয়া .লবনাক্ততাবৃদ্ধি ও অন্যান্য কারণে চিংড়ী মারা যাচ্ছে।

চিংড়ী সমৃদ্ধ এলাকা সাতক্ষীরার শ্যামনগরের বারটি ইউনিয়নে কম বেশী চিংড়ী চাষ হয়ে থাকে।দিনে দিনে চিংড়ীর দাম কমে যাওয়া ও উৎপাদন ব্যাহত হওয়ায় চিংড়ী চাষিরা চিন্তা গ্রস্ত হয়ে পড়ছেন। এ দিকে অনেক চাষি বর্তমান সময়ের চিংড়ী মারা যাওয়ার বিষয়টিকে ভাইরাস আক্রান্ত বললেও অভিজ্ঞদের মতে জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারণকেই দায়ী করেছেন।

উপজেলা মৎস্য অফিস সুত্রে জানা যায় শ্যামনগর উপজেলায় ১৭৫৩৯ হেক্টর জমিতে চিংড়ী চাষ হয়ে থাকে।উপজেলায় গত বছরের হিসাব অনুযায়ী ১৫ হাজার চিংড়ী ঘের রয়েছে।

উপজেলার বুড়িগোয়ালিনী ইউপির নৃপেন্দ্র নাথ,মিজানুর রহমান,আবুল হোসেন,রমজাননগর গ্রামের আঃ সবুর,ভূরুলিয়া ইউপির আব্দুস সামাদ,কামিমাড়ী এলাকার আবুল হোসেন জানান তাদের সহ অন্যান্যদের চিংড়ী ঘেরের মাছ মারা যাচ্ছে।মাছ মরার বিষয়ে বিভিন্ন জন ভিন্ন ভিন্ন মত পোষণ করেন।

এ বিষয়ে শ্যামনগর উপজেলার সিনিয়র মৎস্য অফিসার ফারুক হোসাইন সাগর বলেন চিংড়ী ঘেরে পর্যাপ্ত পানি না থাকা,দিনে ও রাতে তাপমাত্রার পরিবর্তন,পানির গুণাগুণ দ্রুত উঠানামা করা,লবন্ক্তাতাবৃদ্ধি ও অন্যান্য কারণে চিংড়ী মারা যাচ্ছে।তিনি বিশেষভাবে জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারণকেই শ্যামনগরে চিংড়ী মারা যাওয়ার কারণ হিসেবে উল্লেখ করেন।

তিনি বর্তমান সময়ে চিংড়ী চাষিদের ঘেরে কমপক্ষে ৩ ফুট পানি রাখা,ভাল পোনা নিয়ে স্থানীয় নার্সারীতে রেখে চিংড়ী ঘেরে পোনা ছাড়া , মাটি ও পানি পরীক্ষা করার ব্যবস্থা সহ উপজেলা মৎস্য অফিসে যোগাযোগ রাখার পরামর্শ দেন ।