মেইন ম্যেনু

জাতীয় কন্যা শিশু দিবসে কিশোরী বাল্য বিয়ের শিকার

শিশু কন্যার বিয়ে বন্ধ করি, সমৃদ্ধ দেশ গড়ি। এই স্লোগানকে সামনে রেখে যখন সারাদেশে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উদযাপন হচ্ছে ঠিক তখন বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলায় বাল্য বিয়ের ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার বাদ জুম্মা উপজেলার পশ্চিম বাগধা গ্রামে মেয়ের বাড়িতে উভয় পরিবারের ঘনিষ্টজনদের উপস্থিতিতে সম্পন্ন হয় এই বিয়ের অনুষ্ঠান।

প্রতক্ষদর্শীরা জানান, পশ্চিম বাগধা গ্রামের দিন মজুর শাহ আলম সরদারের ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে ও বাগধা মহিলা মাদরাসার ছাত্রী সাদিয়ার সঙ্গে উত্তর বাগধা গ্রামের মৃত আলমগীর মিয়ার বাগদা বাজারের মুরগির ব্যবসায়ি জুয়েল মিয়ার (২৫) বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।

ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো. মিন্টু মিয়া জানান, তার ওই বিয়েতে দাওয়াত ছিল। বাল্য বিয়ের কারণে তিনি সেখানে যান নি। পাশাপাশি তিনি বিয়ে বন্ধের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন।

বাগধা ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কর্মী শিখা রানী দাস জানান, তিনি পূর্ব থেকেই এই নির্ধারিত বাল্য বিয়ের কথা শুনেছিলেন। তবে বিয়ে অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে কি না তা তার জানা নেই।

ওই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাবুল ভাট্টি বলেন, বর্তমানে তিনি ঢাকায় রয়েছেন। বিয়ের কথা আগে জেনে চৌকিদার পাঠিয়ে বিয়ে বন্ধ করতে বলেছেন। মেম্বারকেও বিয়ে বন্ধ করতে বলেছেন। তবে বিয়ে বন্ধ হয়েছে কি না তা তিনি জানেন না।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা দিপীকা রানী সেনের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে তিনি এলাকায় নেই। বাড়িতে গেছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গাজী তারিখ সালমন রয়েছেন একটি প্রশিক্ষণে। অতিরিক্ত দ্বায়িত্বে থাকা এসিল্যান্ড শতরূপা তালুকদারও এলাকার বাইরে।

আগৈলঝাড়া থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুল ইসলাম জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে যখন তিনি খবর পেয়েছেন তখন বিয়ে হয়ে গেছে। তার পরেও বিষয়টি নিশ্চিত হতে খোঁজ নেয়া হচ্ছে।