মেইন ম্যেনু

জাতীয় স্মৃতিসৌধের পাশে অবৈধ দখল উচ্ছেদে সড়ক বিভাগের এক প্রকৌশলী লাঞ্ছিত

টিপু সুলতান (রবিন), সাভার প্রতিনিধি : সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে মহাসড়কের উভয় পাশের ফুটপাতের অবৈধ দখল উচ্ছেদে লাঞ্চিত হয়েছেন সড়ক বিভাগের এক উপ-সহকারি প্রকৌশলী। ফুটপাতের অবৈধ দখল উচ্ছেদে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগীতা চাইলেও প্রশাসন সহযোগীতা করছে না বলে জানিয়েছে উপ-সহকারি প্রকৌশলী শহীদুল ইসলাম।

প্রত্যক্ষদর্শীরা্ জানায় উর্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবর জাতীয় স্মৃতিসৌধ কর্তৃপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে আজ সকালে স্মৃতিসৌধ এলাকায় মহাসড়কের পাশের ফুটপাতের প্রায় চার শতাধিক অবৈধ দখল উচ্ছেদে নামে মানিকগঞ্জ সড়ক বিভাগ।

উচ্ছেদ অভিযানে এসময় বিক্ষুব্ধ হকাররা বাধা দিয়ে সড়ক বিভাগের সহকারি প্রকৌশলী শহীদুল ইসলামকে লাঞ্চিত করে।

বাধার মুখেও এসময় সড়ক বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা উচ্ছেদ অভিযান অব্যহত রাখলে হকাররা এসময় মালামাল সরিয়ে নিতে আধা ঘন্টা সময় নেয়।

এসময় ঈদের আগে এধরনের অভিযান বন্ধ রাখার দাবী জানায় হকাররা্।

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক হকার জানায় প্রতিমাসে ৫-৬হাজার টাকা স্থানীয় প্রভাবশালীদের দিয়ে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুটপাতে দেকান দিয়েছেন তারা।এমতঅবস্থায় ঈদের আগে এই রকম অভযানে তারা হতাশ।

এদিকে ফটপাতের অবৈধ দখল উচ্ছেদে সড়ক বিভাগ নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করতে চাইলেও স্থানীয় প্রশাসনের অসহযোগীতায় তা সম্ভব হয় না বলে জানিয়েছেন উপ-সহকারি প্রকৌশলী শহিদুল ইসলাম।তারকাছে স্থানীয় প্রশাসন কেন তাকে সহয়তা করছেনা এমন প্রশ্নকরলে তিনি স্থানীয় প্রশাসনের ব্যপারে মন্তব্য করতে রাজিনন বলে জানান।এসময় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে আওয়ারনিউজ প্রতিবেদককে জানান তিনি।

উল্লে্খ্য স্থানীয় সরকারদলীয় কিছু নেতা-কর্মিও প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তাকে প্রাত্যহিক চাঁদা দিয়ে জাতীয় স্মৃতিসৌধ এলাকায় চলছে প্রায় চারশতাধিক স্থায়ী ওপ্রায় দেড়শতাধিক অস্থীয় ভম্যমান দোকানসহ বেশ কয়েকটি যানবাহন ষ্ট্যান্ড।