মেইন ম্যেনু

জাদুকরী এই পানীয়টি বিনাশ করবে ক্যান্সারের সম্ভাবনা

আপনি কি জানেন বিটের রস ক্যান্সার প্রতিরোধ করে থাকে? এমনকি ইউরোপে অনেক দেশে ক্যান্সারের চিকিৎসায় বিট ব্যবহার করা হয়ে থাকে। ১৯২০ সালে দুই জন জার্মান চিকিৎসক Farberse এবং Schoenenberger ক্যান্সার চিকিৎসায় প্রথম বিট ব্যবহার করে থাকেন। বিট, আপেল এবং গাজর দিয়ে তৈরি করা হয় মিরাকেল জুস। এটি ফুসফুস ক্যান্সারসহ অনেকগুলো ক্যান্সার প্রতিরোধ করে থাকে। চীনারা অনেক বছর আগে ক্যান্সার চিকিৎসায় এই জুসটি ব্যবহার করত। এর জাদুকরী স্বাস্থ্যগুণের কারণে বর্তমান সময় বিশ্ব জুড়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। আসুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক এই জাদুকরী পানীয়টি তৈরির উপায়।

যা যা লাগবে:

১টি মাঝারি আকৃতির লাল আপেল
১টি মাঝারি আকৃতির বিট
১টি মাঝারি আকৃতির গাজর
১ টেবিল চামচ লেবুর রস বা মধু (স্বাদের জন্য)

যেভাবে তৈরি করবেন:

১। প্রথমে আপেল, গাজর এবং বিট ভাল করে ধুয়ে কেটে নিন।

২। সবগুলো উপাদান ব্লেন্ডারে দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন।

৩। প্রয়োজন অনুযায়ে পানি মিশিয়ে নিন।

৪। এবার গ্লাসে ঢেলে মধু বা লেবুর রস মিশিয়ে পান করুন।

কখন খাবেন:

সকালে খালি পেটে এটি পান করুন। এক ঘন্টা পর সকালের নাস্তা খান। এর কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। এটি উচ্চ পুষ্টি সম্পন্ন এবং সহজে হজমযোগ্য জুস। এটি আপনার ওজন হ্রাস করতেও সাহায্য করবে। ২ সপ্তাহের মধ্যে এটি আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে দিবে।

কার্যকারিতা:

অনেকগুলো ভাল অ্যান্টি অক্সিডেন্ট নিয়ে গঠিত বিট, গাজর এবং আপেল। আপেলে আছে ভিটামিন , বি১, বি২, বি৬, সি ই, কে, নিয়াসিন, জিঙ্ক, কপার, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, সোডিয়ামসহ আরোও অনেক ভিটামিন এবং মিনারেল। গাজরে আছে ভিটামিন , বি১, বি৩, বি৬, সি,ই এবং কে, নিয়াসিন, প্যানথ্রোনিক অ্যাসিড এবং বিটা ক্যারটিন আছে। এই উপাদানগুলো ক্যান্সার কোষ প্রতিরোধ করে, ফুসফুস, হার্ট এবং লিভারকে সুস্থ রাখে। নিয়মিত এই জুস পানে রোগ প্রতিরোধ বৃদ্ধি পেয়ে থাকে। দৃষ্টি শক্তি বৃদ্ধি করে, ওজন কমাতে সাহায্য করে থাকে এই জাদুকরী জুসটি।