মেইন ম্যেনু

জানেন, মেয়েরা কোন আঙুলে কেন আংটি পরে?

সচরাচর অনেকেই বলে থাকেন, হাতের পাঁচটা আঙুল কখনো সমান হয় না। ঠিক সেই রকমই পাঁচ আঙুলের পাঁচ আংটির মানেও সমান হয় না। তাই আঙুলের মাপ অনুযায়ী আংটি পরে থাকেন মেয়েরা। আবার কোন আঙুলে কোন ধরনের আংটি শোভা পাবে সেটাও আন্দাজ করে থাকেন। পাঁচটা আঙুলে আংটি পরার কৌশল কি জেনে নিন-

কনিষ্ঠা : যারা স্টেটমেন্ট রিং পছন্দ করেন তারাই কড়ে আঙুলে আংটি পরেন। এতেই বোঝা যায়, তিনি স্টাইল নিয়ে সচেতন। একইসঙ্গে এ আঙুলে আংটি কাজের ক্ষেত্রে বিশেষ সমস্যা করে না।

অনামিকা : এই আঙুলের ইংরাজি নাম ‘রিং-ফিঙ্গার’। এই আঙুলে আংটি পরাটা খুবই স্বাভাবিক। মেয়েদের বাঁ-হাতের অনামিকায় আংটি মানে তার বাগদান বা বিয়ে হয়ে গেছে বলে ধরে নেয়া যায়।

মধ্যমা : এটিই হাতের সবথেকে বড় আঙুল। যারা মধ্যমায় আংটি পরেন, তারা সাধারণত খুব একটা স্টাইল পছন্দ করেন না। একটি মাত্র আংটি পরলে মধ্যমাকেই বেছে নেন মেয়েরা। বুঝবেন, এই মেয়ে কাজের নয়, মধ্যমায় আংটি পরে বেশি কাজ করা যায় না।

তর্জনী : সাধারণত মেয়েরা এই আঙুলে আংটি পরে না। তর্জনীতে আংটি বেশি পরে পুরুষরা। মেয়েরা সাজগোজের জন্য এই আঙুলে আংটি পরলেও সেটি থেকে সাধারণত কোনো অর্থ বোঝা যায় না।

বৃদ্ধঙ্গুষ্ঠ : বুড়ো আঙুলে আংটি পরা খুবই কঠিন। প্রথমত, আংটি পরে থাকাটাই মুশকিলের, দ্বিতীয়ত, সেই আংটি হয় বড় মাপের। অত্যন্ত ধনীরাই এই আঙুলে আংটি পরে থাকেন।

স্পষ্ট কথায়, আর্থিক-প্রাচুর্য বোঝানোর অন্যতম উপায় বুড়ো আঙুলে আংটি পরা। নিজেকে বড়লোকের বেটি বোঝাতেই এই আঙৃলে আংটি পরে মেয়েরা।