মেইন ম্যেনু

‘জাপানি নাগরিককে গুলি করেন মুখোশধারীরা’

রংপুরের মাহিগঞ্জ আলুটারীতে জাপানি নাগরিক হোচিকোনিওকে (৬৬) মুখোশধারী দুই মোটরসাইকেল আরোহী হত্যা করে বলে জানিয়েছে পুলিশ। খুনীদের ধরতে জেলা পুলিশ নগরীর বিভিন্ন স্থানে চিরুনি অভিযান শুরু করেছে।

জেলা পুলিশ ও গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর মাহিগঞ্জ আলুটারী এলাকায় রিকশায় করে যাবার সময় মুখোশধারী ২ অজ্ঞাত বন্দুকধারীর গুলিতে জাপানি নাগরিক হোচিকোনিও আহত হন। এরপর স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ সুপার আব্দুর রাজ্জাকসহ পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে যান।

এদিকে, এ ঘটনায় জাপানি নাগরিক হোচিকোনিও নগরীর প্রাণকেন্দ্র মুন্সীপাড়ায় যে বাসায় ভাড়া থাকতেন সেই বাসার মালিক জাকারিয়া বালা, হুমায়ুন কবীর হিরু ও একজন রিকশাচালককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে বলে কোতয়ালী থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) আবব্দুল কাদের জিলানী জানিয়েছেন।

তিনি আরও জানান, জাপানি নাগরিকের হত্যাকারী মুখোশধারী দুই জনকে খুঁজতে পুলিশ চিরুনি অভিযান শুরু করেছে। যানবাহনগুলো থামিয়ে তল্লাশি করা হচ্ছে। এ ছাড়া মাঠে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা কাজ করছেন।

রংপুরের অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার জয়নুল আবেদীন জানান, হোচিকোনিও রংপুরে বেশ কিছুদিন ধরে অবস্থান করলেও বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করা হয়নি। তিনি আলুটারী এলাকায় একটি আলু ও ঘাসের বীজ উৎপাদন প্রকল্পের কাজ দেখা শোনা করতেন। কারা কি উদ্দেশ্যে তাকে গুলি করল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানান।

তিনি আরও জানান, নিহত জাপানি নাগরিক হোচিকোনিও কাছে পাওয়া পাসপোর্টে দেখা গেছে তিনি এক বছরের ভিসা নিয়ে রংপুরে এসেছিলেন।

তবে নাম না প্রকাশ করার শর্তে একটি গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তা জানান, ঢাকায় ইতালির নাগরিক তাভেলা সিজারের হত্যার রংপুরে জাপানি নাগরিক হত্যার যোগসূত্র রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দ্য রিপোর্ট