মেইন ম্যেনু

জাপানের এক গোলাপী স্বর্গের কথা

ফুল পৃথিবীর বুকে স্রষ্টার ছড়িয়ে দেওয়া অন্যতম স্বর্গীয় সৃষ্টি। নানারকম ফুল রয়েছে পৃথিবীতে। রয়েছে তাদের নানারকম রং, রূপ আর গন্ধ। প্রত্যেকেই তারা চেষ্টা করে যায় সবসময় নিজের মাধ্যমে মানুষের মনকে প্রস্ফুটিত করে তোলার। আর তাই ফুলকে নিয়ে কম আয়োজন নেই মানুষেরও। পৃথিবীর নানা দেশে নানা সময়ে ফুলকে উপলক্ষ্য করে সৃষ্টি করেছে মানুষ নানা অনুষ্ঠান। আর এই তালিকা থেকে বাদ পড়েনি জাপানও। চেরী ফুলের এই দেশটিতে চেরী ছাড়াও রয়েছে আরো হাজার রকমের ফুল। আর তার ভেতরে যে ফুলটিকে নিয়ে প্রতি বছরেই উত্সবে মাতোয়ারা হয়ে ওঠে এখানকার মানুষেরা সেটি হচ্ছে শিবাজাকুরা ফুল।

উত্সবের টুকিটাকি

শিবাজাকুরা ফুলের উত্সব নিয়ে কথা শুনলেই আরেকটি ব্যাপার চলে আসে মাথায়। আর সেটি হচ্ছে এত ফুল থাকতে এই শিবাজাকুরাই কেন? বাস্তবে কিন্তু কেবল শিবাজাকুরাই নয়, জাপানে উত্সব চলে সব ধরনের ফুলকে ঘিরেই। আর সেগুলোর ভেতরে কেন শিবাজাকুরা পড়লো সেটা জানতে হলে আর কিছু নয়, কেবল শিবাজাকুরা ফুরে ভরা মাঠের দিকে তাকাতে হবে একবার। সব প্রশ্নের উত্তর সেখানেই পেয়ে যাবেন আপনি।

বলা হয় ফুজিতে গোলাপী স্বর্গ অবস্থিত। আর এই স্বর্গ হচ্ছে শিবাজাকুরা ফুলের মাঠ। সাধারণত গোলাপী রংএর হলেও এই উত্সবে এসে আপনি দেখতে পাবেন সাদা আর বেগুনী রংএর শিবাজকুরাও। সাধারণত বছরের এপ্রিল থেকে মে মাসের প্রথম তিন সপ্তাহেই চলে এই উত্সবটি। ফুজি ফাইভ লেক এলাকার মোটোসুকো খাল থেকে তিন কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত একটি প্রশস্ত ফুলের গাছ ভর্তি মাঠে অনুষ্ঠিত হয় উত্সব। ম্যাকডেনিয়াল কুশন, স্কারলেট ফ্রেইম, অটম রোজ, লিটল ডট ও টামা নো নাগারে সহ মোট ৫ ধরনের শিবাজাকুরা দেখতে পাবেন আপনি একানে এলে। মাঠটিতে বর্তমানে রয়েছে প্রায় ৮০০,০০০ টি শিবাজাকুরা ফুলের গোছা ( জুম ইন জাপান )। তবে উত্সব যদি আপনার প্রাধান্য না হয় তাহলে বছরের অন্যান্য সময়েও এসে আপনি দেখে যেতে পারেন এই অসম্ভব সুন্দর স্থানটি।

উত্সবের সময় এখানে দরকারী সবকিছুই পাবেন আপনি। স্থানীয় জিনিসপত্র বিক্রি করার দোকান, ফুলের দোকান, স্যুভিনিয়রের দোকান, খাবার দোকান- মোট কথা উত্সবকে ঘিরে এখানে সবকিছুই গড়ে ওঠে যেমনটা গড়ে ওঠে অন্য কোন মেলায়। ফলে পাহাড়ের কোলে খানিকটা নির্জনতার আবেশ পেলেও সেই সাথে জীবনের আমেজও পুরোপুরি উপভোগ করতে পারবেন আপনি এখানে এলে।

কী করে যাবেন?

জাপানের ফুজিতে পালিত হওয়া শিবাজাকুরা ফুলের উত্সবে যেতে হলে প্রবেশ পথেই ৫২০ ইয়েন খরচ করতে হবে আপনার। তবে তার আগে সেখানে পৌঁছবার জন্যে ধরতে হবে শাটল বাস। এমনিতে ব্যক্তিগত গাড়িতে যাওয়া গেলেও বেশিরভাগ মানুষই এখানে আসেন কাওয়াগিচিকো স্টেশনের শটল বাসে চেপে, যেটি কিনা খুব কম সময়ের ভেতরেই একেবারে স্টেশন থেকেই নিয়ে যাবে উত্সবের একদম কাছটিতে। উত্সবের জন্যেই তৈরি হওয়া এই বাসটির নাম শিবাজাকুরা লাইনার। তবে এই বাসে চড়ে পুরো একটা ভ্রমণের জন্যে আপনাকে গুনতে হবে মোট ১৯০০ ইয়েন ( জাপান গাইড )।

তবে খরচ যেটাই হোক না কেন, একবার ফুলের এই উত্সবে প্রবেশ করলে পকেটের পুরোটা কষ্টই ভুলিয়ে দেবে আপনাকে অসম্ভব সুন্দর এই উত্সবটি। আর তাই দেরী না করে চটজলদি পরিকল্পনা করে ফেলুন শিবাজাকুরা উত্সবে যাওয়ার!



(পরের সংবাদ) »