মেইন ম্যেনু

জাবিতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভাংচুর, আটক ১

শাহাদত হোসাইন স্বাধীন, জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে নাহিদ হোসেন নামে এক শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনায় একজনকে আশুলিয়া থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পুলিশের কাছে হস্তান্তরকারী রাসেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী বলে জানা যায়। শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী গেরুয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে। পরে নাহিদকে মারধরের ঘটনায় শাখা ছাত্রলীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক সজীব কুমার সাহার নেতৃত্বে ছাত্রলীগ কর্মীরা কয়েকটি দোকান ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে।

প্রতক্ষদর্শীরা জানান, শুত্রবার দুপুরে গেরুয়া বাজারে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের ৪০তম ব্যাচের শহিদ রফিক জব্বার হলের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মী মো.নাহিদ হোসেন এক হোটেলে নাস্তা করতে বসেন। এ সময় উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের ৩৭তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী রাসেল ওই হোটেলে এসে তাকে সরে বসতে বলেন। এ নিয়ে দুই জনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। এ ঘটনা নাহিদ হলে এসে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের জানান।

পরবর্তীতে শাখা ছাত্রলীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক সজীব কুমার সাহা এবং নাটক ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মাজেদ সীমান্তের নেতৃত্বে ওই হলের প্রায় শতাধিক ছাত্রলীগ নেতাকর্মী গেরুয়া বাজারে গিয়ে রাসেলকে না পেয়ে ২-৩টি দোকান ভাংচুর করেন। পরে তারা রাসেলকে খুঁজে বের করে মারধর করতে উদ্ধুত হন। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি উপস্থিত হয়ে পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রণ করে রাসেলকে পুলিশের হাতে তুলে দেন। দোকান ভাংচুরকারী ছাত্রলীগ কর্মীরা সবাই শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুর রহমান জনির অনুসারী বলে জানা যায়।

দোকান ভাংচুর করার বিষয়ে সজীব কুমার সাহা বলেন, সাময়িক কয়েকটি দোকান বন্ধ করা হয়েছে। তবে দোকান ভাংচুর করা হয়নি। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহা বলেন, প্রক্টিরিয়াল বডি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে রাসেলকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে।