মেইন ম্যেনু

জাবিতে শিবির সন্দেহে আটক ৫

শাহিনুর রহমান শাহিন : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে জামায়াত শিবির সম্পৃক্ততার সাথে জড়িত থাকা সন্দেহে পাঁচ জনকে আটক করে র‌্যাবের কাছে সোপর্দ করেছে প্রশাসন ।

বৃহস্পতিবার দুপুড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সপ্তম ছায়ামঞ্চে ‘ইন্টিলিজেন্ট ফ্রেন্ডস গ্রুপ’ নামের একটি সমবায় সংগঠন এর সদস্য সংগ্রহ করার সময় ওই পাঁচজনকে আটক করে বিশ্ববিদ্যালয়েরর নিরাপত্তা শাখা। আটককৃতদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের বার্তা, অ্যাপ পর্যালোচনা এবং প্রাথমিক জিঙ্গাসাবাদে সন্দেহজনক মনে হলে অধিকতর তদন্তের জন্য তাদেরকে র‌্যাব ৪ এর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার আবু বকর সিদ্দিক।

বৃস্পতিবার সন্ধ্যা ৭ টায় তিনি বলেন, ‘অধিকতর তদন্তের জন্য আটককৃতদের র‌্যাবের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। আটককৃতরা কেউই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নয়’।

আটককৃতরা হলেন সাভার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল তুষার ওরফে মুজাহিদ, মিরপুরের আইডিয়াল ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজির কম্পিউটার সায়েন্স ও ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দুই শিক্ষার্থী আব্দুর রহমান ওরফে আবির মুশফিক ও জাহিদ হাসান, সাভার গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি ও প্রশাসন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মামুনুর রশিদ। এছাড়া রিতা আক্তার বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন গেরুয়াতে থাকেন কিন্তু কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করেন না বলে জানা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা সুদীপ্ত শাহীন জানান, আব্দুল্লাহ আল তুষার ওরফে মুজাহিদ, আব্দুর রহমান ওরফে আবির মুশফিক, মামুনুর রশিদ, জাহিদ হাসান ও রিতা আক্তার সপ্তম ছায়ামঞ্চে বসে আলোচনা করছিলো। তাদের আচরণ সন্দেহজনক মনে হওয়ায় আমি তাদের পরিচয় জানতে চাইলে তারা এই ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থী বলে পরিচয় দেয়। এতে আমার সন্দেহ হলে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পারি তারা বাইরের এবং কোনো একটি সংগঠনের সদস্য সংগ্রহের জন্য এখানে এসেছে। পরে আরো জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের নিরাপত্তা শাখার অফিসে নিয়ে এলে তাদের মোবাইলের ক্ষুদে বার্তা ও বিভিন্ন (মোবাইল) অ্যাপ চেক করে জামাত-শিবির ও ওই জাতীয় সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ততা পাওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের অবগতিতে র‌্যাবের হাতে সোপর্দ করি।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে আটককৃতরা বলেন, তারা সাত বন্ধু মিলে ‘ইন্টিলিজেন্ট ফ্রেন্ডস গ্রুপ’ নামের একটি সমবায় সংগঠন করেছে। এ সংগঠনের সদস্য সংগ্রহ করতে তারা এখানে এসেছে’।

এই সংগঠনের সভাপতি হলেন- আব্দুল্লাহ আল তুষার ওরফে মুজাহিদ এবং তার বাড়ি বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন ইসলামনগর এলাকায়। তিনি দুই বছর মালয়েশিয়ায় ডিপ্লোমা করে এসেছেন। সাধারণ সম্পাদক হলেন- আব্দুর রহমান ওরফে আবির মুশফিক এবং তিনি সাভারে থাকেন। বাকিরা সংগঠনের সদস্য বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে র‌্যাব-৪ এর কর্মকর্তা মেজর হাকিম সাংবাদিকদের বলেন, ‘আটককৃতদের মোবাইল ফোনের কিছু বার্তা আমাদের হাতে আছে’। তবে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।