মেইন ম্যেনু

জাবি শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশন তৃতীয় দিনে,কাল ছাত্র সমাবেশের ডাক

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দায়ের করা হত্যা চেষ্টা হামলা প্রত্যাহারের দাবিতে করা শিক্ষার্থীদের অনশন আজ তৃতীয় দিনে গড়িয়েছে।

শনিবার থেকে শুরু হওয়া অনশন কর্মসূচিতে আজ সোমবার দুপুরে আর ও তিনজন শিক্ষার্থী যোগ দিয়েছেন। এই মিলিয়ে অনশনকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা দাড়াঁল ৮ জনে।

এদের মধ্যে শনিবার ইংরেজি বিভাগের ৪২ তম আবর্তনের শিক্ষার্থী সর্দার জাহিদুল ইসলাম একই বিভাগের তাহমিনা জাহান তুলি ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ৪০ তম আবর্তনের পূজা বিশ^াস অনশন শুরু করেন । পরবর্তীতে চলমান অনশনের দ্বিতীয় দিন রবিবারে যোগ দেন আইন ও বিচার বিভাগ ৪৩ তম আবর্তনের শিক্ষার্থী খান মুনতাসির আরমান ও দর্শন বিভাগ ৪৫ তম আবর্তনের ফয়সাল আহমেদ রুদ্র।

আজ সোমবার বেলা ২ টা থেকে আর ও তিন শিক্ষার্থী অনশনে যোগ দেন। তারা হলেন-বাংলা বিভাগ ৪৩ তম আবর্তনের নাইমুল আলম মিশু,নৃবিজ্ঞান বিভাগ ৪৫ তম আবর্তনের রাতুল খালিদ ও গণযোগাযোগ ও গণমাধ্যম বিভাগের শিক্ষার্থী তাসনোভা তাজিন ইভা ।

সোমবার দুপুর থেকে অনশন কারী জাহিদ ও পূজার স্বাস্থ্যের অবনতি হতে থাকে । জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের চিকিৎসক ডা. তৌহিদ হাসান শাহ চৌধুরী জানান,অনশনকারীদের পানিশূন্যতা ও রক্তশূন্যতা দেখা দিয়েছে। তাদের যত দ্রুত সম্ভব হাসাপাতালে ভর্তি করাতে হবে।

দুপুর ১২ টার দিকে বিশ^বিদ্যালয়েল প্রাধ্যক্ষ কমিটির সভাপতি অধ্যাপক কৌশিক সাহার নেতৃত্বে শিক্ষকদের একটা প্রতিনিধি দল শহীদ মিনারে গিয়ে শিক্ষার্থীদের অনশন তুলে নেয়ার আহবান জানান। শিক্ষার্থীরা মামলা প্রত্যাহারে দাবি তুললে এই দাবি নিয়ে উপাচার্যের সাথে আলোচনার আশ^াস দেন প্রতিনিধি দল।

এ ব্যাপারে অনশনকারী শিক্ষার্থী খান মুনতাসির আরমান জানান,“শিক্ষক প্রতিনিধি দল আমাদেরকে অনশন তুলে নেয়ার আহবান জানিয়েছেন,তবে আমরা মামলা প্রতাহার না করা পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাব’।

এদিকে মামলা প্রত্যাহারসহ চার দফা দাবিতে আগামীকাল (মঙ্গলবার) বেলা ১১ টায় বিশ^বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার চত্বরে ছাত্র সমাবেশের ডাক দিয়েছেন মামলা প্রত্যাহারে আন্দোলন করে আসা ‘প্রতিবাদের নাম জাহাঙ্গীর’ সংগঠন।

সংহতি: জাবি শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশন কর্মসূচিতে সংহতি জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারশন। ছাত্র ফেডারেশনের দপ্তর সম্পাদক এম এই রিযাদ স্বক্ষরিত এক বিবৃতিতে সংহতি জানানো হয়।






মন্তব্য চালু নেই