মেইন ম্যেনু

জামালপুরে ১০ টাকা কেজির ৯৭ বস্তা চাল কালোবাজারে, ডিলার আ’লীগ নেতা

জামালপুরের সদর উপজেলার হাজীপুর বাজার থেকে সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৫০ কেজি ওজনের ৯৭ বস্তা চাল জব্দ করেছে পুলিশ। ওই চালের ডিলার উপজেলার মেষ্টা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ ফারুকী রতন। দুস্থদের মাঝে চালগুলো বিতরণ না করে তিনি তা কালোবাজারে বিক্রির চেষ্টা করছিলেন।

ঘটনার পর থেকে ওই ডিলার পলাতক রয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলা হবে বলে জেলা প্রশাসন জানিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, জামালপুর সদরে মঙ্গলবার সকালে দিকে মেষ্টা ইউনিয়নের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার আশরাফ ফারুকী রুকন এর নামে ৫০ কেজি ওজনের ৯৭ বস্তা বরাদ্দ করা চাল কালোবাজারে বিক্রির সময় স্থানীয় জনতা ধরে ফেলে।

খবর পেয়ে জামালপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাসেল সাবরিন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুস সালাম পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে চালের বস্তাগুলো জব্দ করেন।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে কালোবাজারে বিক্রির সময় ৯৭ বস্তা চাল জব্দ করা হয়। জব্দ করা চালগুলো সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের জিম্মায় রাখা হয়েছে এবং ডিলার আশরাফ ফারুকীর নামে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ঘটনার পর ডিলার পলাতক রয়েছে। হতদরিদ্রদের মাঝে বিক্রির চাল কালোবাজারে বিক্রির অভিযোগে অভিযুক্ত ডিলারের লাইসেন্স বাতিল করা হবে এবং তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক।

জামালপুরের এডিসি (রাজস্ব) জ্যোতিশ্বর পাল জানান, অভিযুক্ত পলাতক ডিলারের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হচ্ছে এবং ভ্রাম্যমাণ আদালত নসিমন চালক রফিকুল ও নজরুলকে ১৪ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন।

সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ জানান, জামালপুর সদর উপজেলার মেষ্টা ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার আশরাফ ফারুকী রুকনের নামে গত ২২ সেপ্টেম্বর ২২ টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়। ওই চাল ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিতরণ করার কথা ছিল। কিন্তু চাল বিতরণ না করে কালোবাজারে বিক্রির চেষ্টা করছিলেন।

এদিকে ওই ডিলারের শাস্তির দাবি জানিয়ে দুপুরে হাজিপুর বাজারে বিক্ষোভ মিছিল করেছে হতদরিদ্র লোকজন।