মেইন ম্যেনু

জামায়াতের হরতাল: রাজধানীতে বিশেষ নিরাপত্তা

মানবতা বিরোধী অপরাধ মামলায় মীর কাসেম আলীর মৃত্যুদণ্ড আপিল বিভাগে বহাল থাকার প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামীর ডাকা দেশব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা হরতালকে কেন্দ্র করে যেকোনো ধরনের নাশকতা মোকাবিলায় ও জানমালের নিরাপত্তা বিধানে কঠোর অবস্থানে থাকবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে এ ধরনেরই ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

গতকাল মঙ্গলবার সর্বোচ্চ আদালতে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য মীর কাসেম আলীর মৃত্যুদণ্ডের রায় বহাল রাখার প্রতিবাদে এবং তার মুক্তির দাবিতে বুধবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে দলটি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, হরতালকে কেন্দ্র করে যেকোন ধরনের নাশকতা প্রতিরোধে পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকে রাজধানীতে থাকবে ব্যাপক সংখ্যক পুলিশ, র‌্যাব ও গোয়েন্দা। এছাড়া ফুট পেট্রাল, মোবাইল পেট্রাল, মোটর সাইকেল টহলসহ চেক পোস্ট থাকবে গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকে সন্দেহজনক ব্যক্তি ও যানবাহনে চালানো হবে তল্লাশি অভিযান।

এ ব্যাপারে ডিএমপি’র উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরকার জানান, সব ধরনের নাশকতার আশঙ্কা বিবেচনায় রেখেই নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। রাজধানীবাসীর জানমালের নিরাপত্তায় অন্যসময় যে ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয় এবারও সেভাবেই নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাজানো হয়েছে।

র‌্যাবের উপপরিচালক রুম্মন মাহমুদ জানান, হরতালে নাশকতা এড়াতে র‌্যাব সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে। টহলের পাশাপাশি জোর দেয়া হচ্ছে গোয়েন্দা নজরদারিতে। এছাড়া গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে বিশেষ কিছু স্থানে তল্লাশি চৌকিও বসানো হতে পারে।

গোয়েন্দা সূত্রে জানা যায়, বিগত সময়ে রাজধানীর যেসব এলাকায় জামায়াতের ডাকা হরতালে নাশকতা হয়েছে সেইসব এলাকাগুলোতে গোয়ন্দা নজরদারি বেশি থাকবে। এসব এলাগুলোর মধ্যে মিরপুর, পল্লবী, মৌচাক, পুরানা পল্টন, ফকিরাপুল, যাত্রাবাড়ি, শনির আখড়া, রামপুরা, গুলশান, মহাখালী, সবুজবাগ, বাসাবো, কমলাপুর, দনিয়া, দয়াগঞ্জ, সায়দাবাদ, বাড্ডা, মালিবাগ, খিলক্ষেত ও কামরাঙ্গিরচর অন্যতম।

সূত্র জানায়, হরতালে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যদেরকে নিজের জীবনের নিরাপত্তা রক্ষায়ও সতর্ক থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। দায়িত্বরত অবস্থায় নির্দেশনা অনুযায়ী পোশাক ও অস্ত্রের ব্যবহার এবং তল্লাশি করতে বলা হয়েছে।

এদিকে হরতালকে ঘিরে মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত রাজধানীতে ১৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন থাকবে বলে জানিয়েছেন বিজিবির তথ্য কর্মকর্তা মহসীন রেজা।

উল্লেখ্য, একাত্তরে হত্যা-গণহত্যার দায়ে আলবদর বাহিনীর অন্যতম শীর্ষনেতা মীর কাসেম আলীর ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। চট্টগ্রাম অঞ্চলে মানবতাবিরোধী অপরাধের এই মূল হোতার বিরুদ্ধে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে শহীদ কিশোর মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিনসহ ছয়জনকে হত্যা-গণহত্যার দায় (১১ নম্বর অভিযোগ) প্রমাণিত হওয়ায় তাকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেয়া সর্বোচ্চ দণ্ডাদেশ বহাল রেখেছেন আদালত। মঙ্গলবার (৮ মার্চ) প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন।