মেইন ম্যেনু

জিকা ভাইরাস পরীক্ষা ছাড়াই ভারতীয়দের প্রবেশ

সোনামসজিদ স্থলবন্দরে জিকা ভাইরাস সনাক্তে মেডিকেল টিম গঠন না করায় সীমান্তে সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বেড়ে গেছে। ভারত থেকে আগত পাসপোর্টধারী যাত্রীরা স্বাস্থ্য পরীক্ষা ছাড়াই অনায়াসে প্রবেশ করছে বাংলাদেশে। কিন্তু আগাম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় বাড়ছে উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা।

দক্ষিণ আমেরিকার পর সবশেষ ভারতের পশ্চিমাঞ্চল জিকা ভাইরাসের ঝুঁকিতে রয়েছে। বিশেষ করে ভারতের বেঙ্গালুরু ও পশ্চিমাঞ্চলের উপকূলীয় শহরগুলোতে ভারত সরকার সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে।

সোনামসজিদ ইমিগ্রেশন দিয়ে প্রতিদিন প্রায় (ভারত থেকে চিকিৎসা শেষে আসা রোগী, পণ্যবাহী ট্রাকের চালক, হেলপার, ব্যবসায়ীসহ) এক হাজারেরও বেশি লোক যাতায়াত করে। নিয়মিত এত মানুষ ভারত যাওয়া-আসা করায় জিকা ভাইরাসের ঝুঁকি বেড়েছে। তাদের মাঝে কেউ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে থাকলে তা ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ আশঙ্কা থেকে সতর্কতা অবলম্বন করেছে অন্যান্য স্থলবন্দরগুলো। কিন্তু সোনামসজিদ স্থলবন্দরে এখন পর্যন্ত এ কার্যক্রম শুরু হয়নি।

সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ জিকা ভাইরাস সনাক্তে মেডিকেল টিম গঠন ও আগত যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার দাবি জানিয়েছেন।

শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সঞ্জিব কুমার কর্মকার জানান, জিকা ভাইরাস সনাক্তে এখন পর্যন্ত সিভিল সার্জন অফিস থেকে মেডিকেল টিম গঠনের কোনো নির্দেশনা পায়নি।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডা. প্রধান মো. আবুল কালাম আজাদ জানান, বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত জিকা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী পাওয়া যায়নি। তবে, সোনামসজিদ স্থলবন্দরে দ্রুত সময়ের মধ্যে মেডিকেল টিম গঠন করা হবে।