মেইন ম্যেনু

জিনের বাদশা খাঁচায় বন্ধি !

চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলায় গায়েবী স্বর্ণের ডেক তোলে দেয়ার কথা বলে এলাকার লোকজনের সাথে প্রতারণা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অপরাধে গ্রেপ্তার হওয়া কথিত জ্বিনের বাদশা মালেক প্রকাশ বেদারকে কোর্টে প্রেরণ করেছে পুলিশ। শনিবার তাকে কোর্টে প্রেরণ করলে কোর্ট জেল হাজতে প্রেরণ করেন। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে পুলিশ ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছেন।

এর আগে বুধবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে কথিত জিনের বাদশা আবদুল মালেক প্রকাশ বেলাল রাউজান পৌর এলাকার ৭নং ওয়ার্ডের শাহানগরস্থ একটি মাজারে প্রবেশ করে সাড়ে চার লাখ টাকার কাগজ মোড়ানো বান্ডিল নেওয়ার সময় পুলিশ কথিত জিনের বাদশা আবদুল মালেক প্রকাশ বেলালকে গ্রেফতার করেন। প্রতারনার শিকার জয়ন্ত নাথ ও ফোরকান পৃথক পৃথকভাবে কথিত জিনের বাদশা আবদুল মালেক প্রকাশ বেলালের বিরুদ্ধে রাউজান থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে রাউজান থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, কথিত জিনের বাদশা আবদুল মালেক প্রকাশ বেলালের প্রতারনার শিকার হয়েছেন এলাকার সহজ সরল মানুষ। এলাকার লোকজনকে স্বর্ণের ডেক তোলে দেওয়ার কথা বলে ও জীনের কবল থেকে রক্ষা, ছেলে সন্তান দেয়া, বান টোনা থেকে রক্ষাসহ বিভিন্ন রোগ ভালো করার নাম দিয়ে বিভিন্ন এলাকার অর্থশালী লোকজনের কাছ থেকে থেকে অর্ধ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে কথিত জীনের বাদশা আবদুল মালেক প্রকাশ বেলাল।

এলাকার লোকজন, পুলিশ ও প্রতিবেশীরা জানান, রাউজান পৌর এলাকার ৭ নং ওয়ার্ডের শাহানগর এলাকার মৃত আন মিয়ার পুত্র আবদুল মালেক বেলাল নিজে না বললেও অপ্রকাশ্যে জিনের বাদশা সেজে এলাকার লোকজনকে হলদিয়া বাট পুকুরিয়া মাজারের পার্শ্বে মাটির নিচ থেকে স্বর্ণের ডেক তুলে দেওয়ার কথা বলে ও জীনের কবল থেকে রক্ষা করার কথা বলে এলাকার সহজ সরল মানুষের সাথে প্রতারণা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে বিলাসবহুল দ্বিতরভবন পাকা বাড়ী, সিএনজি অটোরিক্সা, একটি কার, বিপুল পরিমাণ জমি ক্রয় করেছেন নিজ নামে ও নিজ স্ত্রীর প্রবাসী ভাইয়ের ভাগিয়ে নিয়ে আসা স্ত্রীকে বিবাহ করে।

ভাগিয়ে নেয়া স্ত্রী নিলু আকতারের নামে জমি বিলাসবহুল বাড়ী নির্মান করেছেন। আবদুল মালেক বেলাল এক সময় জীপ (চাদেঁর)গাড়ীর হেলপার হিসাবে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতো।