মেইন ম্যেনু

জিয়া খান মৃত্যু রহস্যে নতুন মোড়!

জিয়া খান মৃত্যু রহস্যে আবার সরগরম। সুরজ পাঞ্চোলিকে জেরা করার কথা ভাবছে সিবিআই। শুধু তাই নয়, প্রয়াত অভিনেত্রীর মৃত্যুর কারণ হিসেবে আত্মহত্যা ছেড়ে এবার হত্যাকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন গোয়েন্দারা। এতে ফেঁসে যেতে পারেন সুরজ।

২০১৩ সালের ৩ জুনে জুহুর ফ্ল্যাটে সিলিং ফ্যান থেকে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলতে থাকা ২৫ বছরের জিয়ার দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে মৃত্যুর কারণ আত্মহত্যা বলে দাবি করে পুলিশ।

কিন্তু জিয়ার মা তার প্রতিবাদ করেন। তিনি জানান, অভিনেতা আদিত্য পাঞ্চোলির ছেলে সুরজের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল তার মেয়ের। দাবি করেন, আত্মহত্যা নয় জিয়াকে খুন করা হয়েছিল।

জিয়ার মা রাবিয়া খানের আবেদনের ভিত্তিতে ২০১৪ সালে বম্বে হাইকোর্টের নির্দেশে তদন্তের ভার বর্তায় সিবিআয়ের হাতে। সিবিআই মুখপাত্র জানান, বম্বে হাইকোর্টের নির্দেশে মৃত্যুর কারণ আত্মহত্যা না খুন তা অনুসন্ধানের দায়িত্ব পেয়েছে সিবিআই।

আত্মহত্যার বদলে খুন প্রমাণিত হলে পরবর্তী পর্যায়ের তদন্ত করার নির্দেশও দিয়েছে আদালত। মৃত্যুর জন্য দায়ী ব্যক্তিকে খুঁজে বের করতে প্রয়োজনীয় তদন্ত চালানোর আগাম নির্দেশও দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ফরেন্সিক রিপোর্ট খুঁটিয়ে দেখে প্রাথমিক তদন্তে ফাঁক রয়েছে বলে মন্তব্য করে হাইকোর্ট। এরপরই সিবিআইয়ের হাতে অনুসন্ধানের দায়িত্ব দেয়া হয়।

প্রসঙ্গত, জিয়া খান মৃত্যু রহস্যের জেরে ২০১৩ সালে সুরজ ও আদিত্য পাঞ্চোলিকে জেরা করে পুলিশ। এবার সুরজকে ফের জেরা করার সিদ্ধান্তে নতুন করে আলোচনায় এসেছে জিয়া খান মৃত্যু রহস্য।