মেইন ম্যেনু

জিহাদে পাশে থাকবে বিএনপি : আলাল

বর্তমান সরকারের আমলে প্রণীত শিক্ষানীতিকে ইসলাম ধ্বংসকারী নীতি আখ্যা দিয়েছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। ইসলামী আন্দোলনের ছাত্র সংগঠন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের সমাবেশে যোগ দিয়ে তিনি বলেন, ‘এইনীতি বাস্তবায়ন হলে সত্যিকারের জিহাদ শুরু হবে, তখন সেই জিহাদে বিএনপি আপনাদের পাশে থাকবে।’

ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের ২৫ বছর পূতি উপলক্ষ্যে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে আলাল এ কথা বলেন। এতে বিএনপির এই নেতা ছাড়াও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকী, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপির সভাপতি শেখ শওকত হোসেন নীলু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপি নেতা আলাল বলেন, ‘ইসলামকে ধ্বংসের সব ধরনের প্রচেষ্টা করা হচ্ছে। জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটিয়ে দেশে ইসলামী লেবাসের ওপর বাঁকা চোখে তাকানো হচ্ছে। মাদ্রাসার ছাত্রদের জঙ্গি বানানোর অপচেষ্টা করা হচ্ছে। এই সব ঘটনার পর মসজিদের খুতবা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা হচ্ছে সরকারের পক্ষ থেকে। বাংলাদেশের জেহাদী মানুষ সরকারের এই সব কমকাণ্ড সহ্য করবে না।’

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ নেতা আবদুল কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘ঈমান আকিদা ঠিক থাকলে আপনাদের নেতার হাতে আল্লাহ দেশের নেতৃত্ব তুলে দিবে। কিন্তু ঈমান আকিদা না থাকলে তা ২৫ কেন ৫০ বছরেও ক্ষমতায় যেতে পারবে না।’

এনপিপি নেতা শেখ শওকত হোসেন নিলু বলেন, ‘ইসলাম ধ্বংসকারী যে শিক্ষানীতি আমাদের ওপর চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে তা বাংলাদেশের জনগণ মেনে নিতে পারে না।’ এসময় চরমোনাই পীরের নেতৃত্বে তৃতীয় ফ্রন্ট গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি।

পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি চরমোনাইয়ের পীর সৈয়দ মো. রেজাউল করিম উপস্থিত নেতা-কর্মীদেরকে ইসলামী হুকুমত কায়েমের আন্দোলনে আজীবন পাশে থাকার অঙ্গীকারের শপথ পাঠ করান।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব এ টি এম হেমায়েত উদ্দিন, ইসলামী ঐক্যজোটের একাংশের মহাসচিব শেখ লোকমান হোসেন, ইসলামী আন্দোলন সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতী সৈয়দ মো. ফয়জুল করিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।