মেইন ম্যেনু

জীবনের কাছে হার না মানা একজন মানুষের গল্প

মিরপুর থেকে গুলশান-২ রুটের দিকে যাত্রীবাহী গ্রামীন মিনিবাসে যাতায়াতের সময় প্রায়শই একটি বিষয় দেখে চেতনায় উজ্জিবীত হতে হয় আমাাকে। তা হলো গ্রামীন পরিবহনের একটি গাড়ীতে বহুদিন থেকে একজন হেলপারকে দেখতে পাই গাড়ীর ভেতর উনি লাফিয়ে লাফিয়ে আগাচ্ছেন এবং বাসে উঠা যাত্রীদের নিকট থেকে ভাড়া আদায় করছেন। ভাড়া নেয়া শেষ হলে আবার লাফিয়ে লাফিয়ে গাড়ীর দরজায় গিয়ে দাঁড়িয়ে চালককে নির্দশনায় ও যাতীদের উঠা নামায় সহযোগিতা করছেন। জানা যায় যে, লোকটি একা সুপারভাইজার এবং হেলপার হিসাবে দুটি দায়িত্বই পালন করছেন।

গতকাল গুলশান ২ থেকে মহাখালী আসার পথে এই বাসে উঠলাম আর নামার সময় একটি ছবি তুলে নিলাম। উনি লাফিয়ে লাফিয়ে চলছেন কারন ওনার একটি পা নেই। এক পায়ের উপর ভর করেই উনি হেলপারী আর সুপারভাইজারী করছেন তাও গ্রামীনের মতো একটা ছোট বাসে যেখানে মাথা উঁচু করে দাড়ানোই কষ্টকর।

সেদিন ব্যস্তময় সময়ের বিবেচনায় তার কাছ থেকে জীবনের এই সংগ্রামী তথ্য নিতে পারিনি….কি কারনে উনি ওনার পা হারিয়েছেন, এই সংংগ্রামী জীবন নিয়ে তিনি কি ভালো আছেন ? সে যাই হোক না কেন এটুকু বলা যায়..তিনি হেরে জাননি জীবনের কাছে। তিনি দেখিয়ে দিচ্ছেন কিভাবে জীবনের বাধাকে জয় করতে হয়। অসৎ কোন পথ বেছে না নিয়ে একটি সত্য সুন্দর চ্যালেঞ্জপূর্ণ উপার্জনের পথ বেছে নিয়েছেন। তিনি আমাদের জীবনের প্রেরনা। (সুলতান মাহমুদ)