মেইন ম্যেনু

জুকারবার্গ প্রতিদিন এক টি-শার্ট পরে কেন?

পৃথিবীর সব চেয়ে কম বয়সি বিলিওনিয়ার হিসেবে পরিচিত হওয়ার পরও মার্ক জুকারবার্গের জীবনে একটা জিনিসে কোনো পরিবর্তন আসেনি, তা তার ছাই-রঙা টি-শার্ট! অবাক হতেই পারেন যদি প্রশ্ন থাকে তবে আপনার জিনিয়াস মাথাটাকে একটু ঘুরিয়ে জিজ্ঞাসা করুন তো এরভাইরে কোনো দিন কোনো অনুষ্ঠানে ব্লেজার পরা অবস্থায় ফেসবুক সিইও-র ছবি দেখেছেন খুব একটা? মনে করতে পারবেন না! কেন না, রোজ এক টি-শার্ট পরেই অফিসে যান জুকারবার্গ।

সম্প্রতি পিতৃত্বকালীন অবসর কাটিয়ে ফের কাজে যোগ দিয়েছেন তিনি! এবং, আর পাঁচ জন ফেসবুক ইউজারের মতোই নিজের দেওয়ালে পোস্ট করেছেন খোলা আলমারির ছবি। লিখেছেন, “আবার কাজে যোগ দিতে যাচ্ছি! কনফিউজড্! বুঝতে পারছি না কী পরা যায়!” এবং, সেই আলমারি আর তার তাকে ঝোলানো টি-শার্ট দেখেই ফাঁস হল রহস্যটা! কেন রোজ একই টি-শার্ট পরেন তিনি! কেন না, ওই একটাই রং ছাড়া তাঁর ওয়ার্ড্রোবে আর কোনও রঙের টি-শার্ট নেই! ফলে, ওই কনফিউশনটাও যে তামাশা, স্পষ্ট হল সেটাও!

ব্যাপারটা সত্যি অবাক করার মতো! এত ধনী মানুষদের সাধারণত বিলাসবহুল জামা-কাপড়েই দেখতে অভ্যস্ত আমরা! জুকারবার্গের বেলায় তার এহেন ব্যতিক্রম কেন?

কারণ, জুকারবার্গ তো নিয়ম তছনছ করতেই এসেছেন! ফেসবুক দিয়ে তিনি পালটে দিয়েছেন সামাজিকতার সংজ্ঞা। আর, নিজের ফ্যাশন স্টেটমেন্ট দিয়ে পালটাতে চাইছেন সাধারণ মানুষের মানসিকতা। বোঝাতে চাইছেন, কাজটাই আসল, সাজ-পোশাক নয়!

তবে নিজের গোপন রহস্য নিজেই ফাঁস করার পর ফেসবুক সিইও মার্ক জুকারবার্গ বলছেন, “আমি খুবই সৌভাগ্যবান! ঘুম থেকে উঠেই আমি লক্ষাধিক মানুষের সেবার সুযোগ পাই। সেই কাজে একটুও সময় নষ্ট করতে আমার ইচ্ছে করে না। তাই সাজগোজের মতো তুচ্ছ ব্যাপার, যেগুলো আমার কাজের সময় খেয়ে নিতে পারে, সেগুলো নিয়ে মাথা ঘামাই না।”