মেইন ম্যেনু

জুতার বাজারে ছাড়ের ছড়াছড়ি

আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জুতার বাজারে চলছে ছাড়ের ছড়াছড়ি। ৫ থেকে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড়ের ব্যবস্থা করেছে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন ব্র্যান্ড ও নন-ব্রান্ডের জুতার দোকান। এমনকি ক্রেতাদের আকর্ষণে তারা নতুন নতুন ডিজাইনের জুতা নিয়ে এসছে বাজারে।

ঈদের আরো সপ্তাহ-দুই বাঁকি থাকলেও এরই মধ্যে পছন্দের জুতাটি বেছে নিতে নগরীর বিভিন্ন শো’রুম গুলোতে ডু মারছেন ক্রাতারা। ঈদ কেনাকাটার অন্যতম এই অনুষঙ্গ জুতা বেচাকেনায় বেশ ক্রেতা দর্শনার্থীর ভীড় দেখা যায় দেশের অন্যতম প্রভাবশালী জুতার বাজার বাটা’র শো’রুম গুলোতে।

রাজধানীর হাতিরপুলে বাটা সিগন্যাল মোড়ে বাটার দোতলা শো’রুমে গিয়ে দেখা যায় ঈদ কেনাকাটার আমেজ। ক্রেতা দর্শনার্থীদের ভীড়ে পা ফেলার ফুসরত করতেই যেন বেগ পেতে হচ্ছিল সেখানে।

ঈদ বাজারে বেচাকেনা ও নতুন ডিজান এবং ক্রেতা চাহিদা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এখন রোজার মাঝামাঝি তাই দর্শনার্থী থেকে ক্রেতার সমাগমই একটু বেশি। এবার আমরা ক্রেতাদের পছন্দের কথা মাথায় রেখেই নতুন কিছু ডিজাইন নিয়ে এসেছি। ছোট বড় সবার জন্য শতাধিক আইটেমের জুতা আছে আমাদের এখানে’।

মেয়েদের জন্য ৪৫০ থেকে ৩৫০০ টাকা পর্যন্ত এবং ছেলেদের জন্য ৫৯০ থেকে শুরু করে ৪৫০০ টাকা দামের জুতা রয়েছে বলেও জানা যায়। এর মধ্য প্রতিটি পন্যেই ১০ শতাংশ মূল্যছাড়ের ব্যবস্থা রয়েছে। যার মধ্যে বিকাশে পেমেন্টের উপর ১০ শতাংশ ক্যাশ ব্যাক ও মোবাইল অপারেটর বাংলালিংক কর্তৃক ১০ শতাংশ মুল্য ছাড়ের ব্যবস্থা। দেশের সবকটি শো’রুমেই এই সুযোগ ঈদের আগের দিন পর্যন্ত থাকবে বলেও জানা যায়।

এদিকে বাটা’ ছাড়াও অন্যান্য ব্র্যান্ড ও নন-ব্র্যান্ড এর শো’রুম গুলোতে দেখা যায় ঈদ স্পেশাল ছাড় দিতে। এর মধ্যে ইতালিয়ান ব্র্যান্ড ‘লটো’ জেনিস সহ অন্যান্য দোকান গুলোতে বিশাল মূল্য ছাড়ের ব্যবস্থা রয়েছে। কয়েকজন ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতিযোগিতার বাঁজারে ক্রেতাদের আকর্ষন বাড়াতেই এসব ছাড়ের আয়োজন করেছে তারা। এমনকি ক্রেতাদের সর্বোচ্চ সুবিধা দিতে জোট বেধে তারা কাজ করছেন বলেও জানান।

প্রতি বছর রমজানের ঈদেই কেনাকাটা অনন্য এক আমজে বিরাজ করে রাজধানীতে। এবারেও এর ব্যত্তয় ঘটেনি। তবে ক্রতারা ছুটেন তাদের পছন্দের জিনিসটি কিনতে। এখানে মূল্য ছাড়ের বিষয়টি কতটা কাজ করে তাদের মধ্যে, জানতে কথা হয় আসিফ-শারমিন দম্পতির সাথে।

তারা বলেন, ‘দেখেন মানসম্মত জিনিস কিনতেই ব্রান্ডের দোকানে আসি। তবে একটু আধা-টুকু ছাড় থাকলে তো ভালই লাগে’। তবে মূল্য ছাড় ও মানের বেড়া জালে পছন্দের দিকেও বেশ জোর দিচ্ছেন ক্রেতারা। উৎসবে পছন্দটাই সব থেকে বেশি গুরুত্বের বলেও মত অনেক ক্রেতার।বিডি২৪লাইভ