মেইন ম্যেনু

জুতা সেলাই করে লেখাপড়ার খরচ চালায় বাবা-মা হারা ক্লাস ওয়ানের ছাত্র!

রংপুর : বয়স তার ৮ বছর। পড়ে সবেমাত্র ক্লাস ওয়ানে। কিন্তু এ বয়সেই জুতা সেলাই করে লেখাপড়ার খরচ চালায় বাবা-মা হারা সেই ছোট্ট ছেলেটি।।

রংপুরের কাউনিয়ার প্রথম শ্রেণির ছাত্র পলাশ। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত স্কুলে পড়ালেখা করে সে। এরপর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কাউনিয়া বালিকা বিদ্যালয় মোড়ে তার জেঠার সঙ্গে জুতা সেলাই করে নিজের পড়ালেখা ও সংসারের যোগান দিয়ে যাচ্ছে পলাশ।

সে কাউনিয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র।

পলাশ বলে, সে উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের নিজপাড়া গ্রামের মানিক মিয়ার বড় ছেলে। মাত্র ৩ বছর বয়সেই তার বাবা মারা যায়। বাবা মারা যাওয়ার ২ বছর পর মা-ও মারা যায়।

তখন থেকে তার জ্যাঠা নকিচান তার দেখাশুনা করে আসছেন। বর্তমানে মাত্র ৫ শতক জমিতে কোনোরকম কুড়ে ঘর তুলে বসবাস করছে নকিচান।

নিজেদের জমিজমা না থাকায় সারাবছর মুচির কাজ করে সংসার চলে তার। জ্যাঠা সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন। তাই সংসারে বাড়তি আয় ও নিজের পড়াশুনার খরচ যোগাতে স্কুল থেকে এসে একটু খেয়ে দোকানে চলে যায় সে।

জ্যাঠার সঙ্গে জুতা সেন্ডেল সেলাই ও কালি করার কাজ করে পলাশ। কখনো জ্যাঠা অসুস্থ থাকলে তাকে একাই কাজ করতে হয়। জ্যাঠা অসুস্থ হলে সেদিন আর স্কুলে যাওয়া হয় না তার।

বন্ধুদের কাছ থেকে পড়া জেনে নিয়ে রাতে পড়া শিখে পলাশ। দিনে তার ৫০ থেকে ৬০ টাকা আয় হয়। এভাবে সংসারে রোজগার করে সহায়তা করে আসছে ছোট্ট পলাশ।