মেইন ম্যেনু

জুনায়েদের ‘বড়ভাই’ও এখন কারাগারে

বহুল আলোচিত জুনায়েদের পর তার কথিত সেই বড়ভাই রিজভীও এখন কারাগারে। সম্প্রতি জুনায়েদকে দুই দিনের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে হাজির করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

রিমান্ডে জুনায়েদ রিজভীর নির্দেশে নুরুল্লাহর ওপর নির্যাতন চালিয়েছিল বলে জানায়। গত সপ্তাহে পুলিশ রিজভীকে গ্রেফতার ও তিনদিনের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আজ আদালতে হাজির করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ধানমন্ডি থানা পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা জানান, স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে পরিচালিত একটি স্কুল পরিচালনা কমিটির পদপদবি নিয়ে বিরোধের জেরের তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে জুনায়েদ রাজধানীর ধানমন্ডির অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের এ লেভেলের ছাত্র নুরুল্লাহর ওপর নির্যাতন চালায়। ভিডিওতে নির্যাতনের দৃশ্য ধারণ ও সেটি ফেইসবুকে ছড়িয়ে দিয়ে দেশ বিদেশে খারাপ সেলিব্রেটির খেতাব পায় জুনায়েদ।

জিজ্ঞাসাবাদে রিজভী জানায়, প্রটেক্টেড এডুকেশন বাংলাদেশ (পিইবি) নামে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে পরিচালিত স্কুল পরিচালনার সাথে সে, নুরুল্লাহ, জুনায়েদ ও মৌ (ছদ্মনাম) নামের এক তরুণীসহ বেশ কয়েকজন উঠতি বয়সি ছেলেমেয়ে জড়িত ছিলো। তারা বস্তিতে ঘুরে ঘুরে ছোট ছোট শিশুদের ডেকে এনে পাঠদান করাতো।

ওই স্কুলের নতুন কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে মনোয়ারা ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের বিবিএর নবম সেমিষ্টারের শিক্ষার্থী রিজভীর সাথে নুরুল্লাহর মনোমালিন্য হয়। কমিটিতে ‘মৌ’কে পদপদবি দেয়া নিয়ে দ্বন্ধ চরমে উঠে। নুরুল্লাহকে শাসাতে জুনায়েদকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে আসে রিজভী।

নুরুল্লাহকে শুধু ভয় দেখিয়ে চড়থাপ্পড় মেরে ছেড়ে দিতে রিজভী নির্দেশ দিলেও জুনায়েদ হিরোগিরি দেখাতে গিয়ে নুরুল্লাহকে উপর্যুপরি মারধর করে তা ভিডিওচিত্রে ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছেড়ে দেয়। তুচ্ছ ঘটনায় ছোট্ট ভুলের খেসারতে জুনায়েদ দেশবিদেশে ‘ব্যাড সেলিব্রেটি’ উপাধি পায়। তথ্যপ্রযুক্তি মামলার আসামি হয়ে জেলে যেতে হয়। সেই সঙ্গে জেলে যেতে হলো রিজভিকেও।

জানা গেছে ধানমন্ডি থানা পুলিশ এখন ফেসবুকে মৌ’য়ের একটি ছবি পোষ্ট করার নেপথ্যে নায়ককে খুঁজছি। আপত্তিকর ওই ছবিটি প্রকাশের মাধ্যমে মৌ’কে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করায় ওই যুবক অপরাধি ও মামলায় আসামি হবে বলে পুলিশ জানায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ধানমন্ডি থানা পুলিশের এসআই নুরুল হক বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। তবে তিনি বিস্তারিত কিছু বলতে অস্বীকৃতি জানান।