মেইন ম্যেনু

জুন পর্যন্ত টাইম স্কেল বিবেচনার নির্দেশ

সরকারি চাকরিজীবীদের গত ৩০ জুন পর্যন্ত টাইম স্কেল সুবিধা বিবেচনার নির্দেশ দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। মন্ত্রণালয়ে এ সংক্রান্ত বেশ কিছু আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি এ নির্দেশ দিয়েছেন। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রে জানা গেছে, বঞ্চিত কয়েকজন চাকরিজীবীরা অর্থমন্ত্রীর কাছে লিখিত আবেদন করেছেন। এছাড়া মন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেও অনেকে তাদের বঞ্চনার কথা জানিয়েছেন। পরে মন্ত্রী এ বিষয়ে বিবেচনার নির্দেশ দেন। এ সংক্রান্ত এক নোটে অর্থমন্ত্রী লিখেছেন, ‘বিষয়টি জরুরি ভিত্তিতে মীমাংসা করুন।’

এর আগে অষ্টম জাতীয় বেতন স্কেলের আওতায় চাকরিজীবীদের গত ১৪ ডিসেম্বরের পর টাইম স্কেল সুবিধা বাতিল করা হয়। এতে অনেক কর্মকর্তা ও কর্মচারী বঞ্চিত হয়েছেন।

অর্থমন্ত্রীর কাছে আবেদনপত্রে এক কর্মচারী লিখেছেন, ২০১৫ সালের ১৫ ডিসেম্বরে জাতীয় বেতন স্কেলের গ্যাজেট প্রকাশ করা হয়। এর আগের দিন পর্যন্ত টাইম স্কেল ও ইনক্রিমেন্ট সুবিধা দেয়া হয়। আর পরের দিন থেকে পাওনা থাকলেও অনেক কর্মকর্তা ও কর্মচারী বঞ্চিত হয়েছেন। ২০১৫ সালের ১ জুন থেকে ২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত কোনো ধরনের গ্যাজেট ছাড়াই ইনক্রিমেন্ট প্রদান করা হয়েছে। আবেদনে এ সময়কালে সবাইকে টাইম স্কেল প্রদান করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

জানা গেছে, জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ ঘোষণার সঙ্গে বাতিল করা হয় টাইম স্কেল, সিলেকশন গ্রেড ও ইনক্রিমেন্ট (বেতন বর্ধিত) সুবিধা। তবে ২০১৫ সালের ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনটি সুবিধা বহাল রাখা হয়। কিন্তু বছরের মাঝামাঝি ১৫ ডিসেম্বর থেকে এ সুবিধা পুরোপুরি বন্ধ ঘোষণার কারণে কাছাকাছি সময়ে এসে অনেকেই বঞ্চিত হয়েছেন। ফলে একই পদের একজন এ সুবিধা পেলেও পাশের টেবিলে আরেকজন বঞ্চিত হয়েছেন।