মেইন ম্যেনু

জেনে নিন অদ্ভুত তুতেন খামেনের অভিশাপ সম্পর্কে

১৯২২ সাল,মিশর। উন্মোচিত হলো ফেরাউন তুতেন খামেনের সমাধি। তারপর থেকে একের পর এক ঘটতে থাকে বিস্ময়কর সব মৃত্যু। সমাধি উন্মোচনে যারা অংশ নিয়েছিল তাদের সবাই একে একে মারা গেলেন বিভিন্ন কারনে।

তাদের সকলের মৃত্যুই ছিল অস্বাভাবিক। সে সব মৃত্যুর কোন যৌক্তিক কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। এতে জনমনে একটা বদ্বমূল ধারণা জন্ম নিল যে, তুতেন খামেনের অভিশাপে মারা গেছে সবাই। কিন্তু সম্প্রতি এই অভিশপ্ত মৃত্যু রহস্যের বিজ্ঞান সম্মত ব্যাখ্যা পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞানীদের মতে, তুতেন খামেনের অভিশাপ অন্য কিছু নয়,এক ধরনের সুক্ষ্ম ক্ষুদে আণুবীক্ষনিক জীবানু বা মাইক্রোব নাম অ্যাসপার সিলাস ফ্লাভাস। এরা সাধারন ভাবে স্যাঁতসেঁতে গুমোট জলাভূমিতে জন্মে।

এই জীবানু মানব দেহের দুর্বল অংশগুলোতে হামলা চালায়। ফলে মানুষের নিজের অজান্তেই বিভিন্ন রোগ ব্যাধিতে আক্রান্ত হয় ও ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। কিন্তু সবচেয়ে অবাক কান্ড হলো শত শত বছর ধরে মাটির নিচে বাতাস ছাড়া এসব মাইক্রোবের বেঁচে থাকাটা একটু বিস্ময়কর বটে।

তবে ওটা এখনো এক রহস্য-ই থেকে গেছে। বিজ্ঞানীরা সন্দেহ করছেন প্রাচীন মিশরীয়রা হয়তো বিশেষ কোন উপায়ে মমিতে এই জীবানু ছড়িয়ে দিত। যাতে মমি বা তার সাথে রাখা ধন দৌলত লুট করতে এসে লুটেরারা এর খপ্পরে পরে মারা যায়।