মেইন ম্যেনু

জেনে নিন, ওসামা বিন লাদেনের বিতর্কিত ৫ অজানা তথ্য

আজ যেমন বিশ্ব আইসিসের নামে আতঙ্কিত, চার বছর আগে পর্যন্ত মানুষের আতঙ্কের নাম ছিল ওসামা বিন লাদেন। ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের সেই ভয়াবহ দিনটার খলনায়ক।

৪ বছর আগে এই দিনটাতেই NAVY SEAL পৃথিবী থেকে মুছে দিয়েছিল লাদেন আতঙ্ক। তাই এই দিনটাতেই জেনে নিন লাদেন সম্পর্কে বিতর্কিত এমন কিছু তথ্য যা আপনি আগে শোনেননি। তবে বলে রাখা ভালো তথ্য গুলো বিদেশি গণমাধ্যম থেকে নেওয়া।

১. লাদেনের অ্যাবোটাবাদের বাড়ির বাগানে নানারকম সবজি চাষ হত। আলু, কপি ছাড়াও ওই তালিকায় ছিল গাঁজা। প্রচুর পরিমাণে গাঁজার চাষ হত ওসামার বাড়ির বাগানে। লাদেনের মৃত্যুর পর ওই বাগান থেকে ১০ লক্ষ টাকার গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

মনে করা হয়, এই গাঁজার চাষের পিছনে কারণ ছিল ড্রাগের ব্যবসা। পশ্চিমী দেশগুলোর সঙ্গে বিশাল টাকার আদানপ্রদান চলত এই গাঁজার বিনিময়ে।

২. গানের সঙ্গে লাদেনের সম্পর্কটা মোটেও ভাল না। গান তিনি একদম পছন্দ করতেন না। তাঁর কাছে গান হল ‘ফ্লিউট অব ডেভিল’।

কিন্তু তাঁর সবথেকে পছন্দের মহিলা ছিলেন একজন গায়িকা, মার্কিন পপস্টার ব্রিটনি হাউটন। ব্রিটনি হাউটানকে নিজের স্ত্রী বানানোর জন্য তিনি যে কোনও কিছু করতে রাজি ছিলেন। এমনকি একসময় বড় অঙ্কের টাকা খরচ করেছিলেন ব্রিটনির সঙ্গে কিছু সময় কাটানোর জন্য।

৩. লাদেনের এক দেহরক্ষী জানান, তিনি নাকি খুব ভাল ভলিবল খেলোয়াড় ছিলেন। ফুটবলও তাঁর খুব পছন্দের ছিল। তিনি ছিলেন আর্সেনালের ভক্ত। পয়সা দিয়ে টিকিট কেটে ম্যাচও দেখতে যেতেন।

৪. লাদেনের অন্যতম দুর্বলতা ছিল পর্নগ্রাফি। প্রচুর পরিমাণে পর্ন দেখতেন তিনি। লাদেনের মৃত্যুর পর তার ঘর থেকে যে হার্ড ড্রাইভ পাওয়া যায় তা থেকে মেলে প্রচুর পর্ন।

৫. ছাত্র হিসেবে ছোট থেকেই খুব ভাল ছিলেন ওসামা বিন লাদেন। স্কুলের পর তিনি পড়াশোনা করেছিলেন অর্থনীতি নিয়ে। পরে পড়েছিলেন ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ইকনোমিক্স। অর্থনীতিটা খুব ভাল বুঝতেন বলেই বিপুল পরিমাণে সম্পত্তি বানাতে সক্ষম হয়েছিলেন।

সূত্রঃজিনিউজ