মেইন ম্যেনু

জেনে নিন কিভাবে তিল বা আঁচিল থেকে মুক্তি পাবেন

ব্রণের মতোই তিল বা আঁচিল মুখের সৌন্দর্যহানির একটা বড় কারণ৷ কিন্ত্ত মুশকিল হল ব্রণ ক্ষণস্থায়ী হলেও তিল বা আঁচিলের সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়া কঠিন , যদি না সঠিক সময়ে সঠিক চিকিত্সা করা হয়। ত্বকের ওপর যে কোনও জায়গায় তিল বা আঁচিল হতে পারে৷ একটা আবার অনেক সময়ে একই জায়গায় এক সঙ্গে অনেকগুলো আঁচিল হতেও দেখা যায় সাধারণত শৈশব থেকে তিরিশ বছরের মধ্যেই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আঁচিল হয়ে থাকে৷

তিল বা আঁচিল কেন হয় ?
মেলানোসাইট নামে এক ধরনের কোষ আমাদের ত্বকের রঙ নির্ধারণ করে , কোনও কারণে এই কোষ ত্বকের কোনও একটা জায়গায় বেশি পরিমাণে সঞ্চিত হলে সেখানে আঁচিলের সৃষ্টি হয় এছাড়াও জিনগত কারণেও আঁচিল হতে পারে৷ বিশেষ করে মায়ের যদি আঁচিল থাকে তবে তার সন্তানদেরও আঁচিল হওয়ার প্রবণতা দেখা যায়৷ আঁচিল কালো বা খয়েরি রঙের হতে পারে৷ তবে সাধারণত অত্যাধিক সূর্যের আলো লাগার ফলে বা টিনএজে এবং গর্ভাবস্থায় আঁচিলের রঙ বেশি গাঢ় হওয়ার সম্ভাবনা থাকেআঁচিলের মতো তিলও প্রধানত জিনগত কারণে হয়৷ তাছাড়া সূর্যালোকও তিল হওয়ার জন্য দায়ী৷ শরীরের যে সব জায়গায় সরাসরি সূর্যের আলো পড়ে যেমন – মুখে বা হাতে , যেখানে তিল হওয়ার আশঙ্কা বেশি থাকে আবার চিকিত্সা জনিত কারণেও অনেক সময়ে তিল হয়৷ রেডিয়েশন থেরাপি দীর্ঘ দিন চললেও তার ফলে তিল হতে পারে৷ তিল এবং আঁচিলের মতোই অত্যাধিক সূর্যরশ্মি লাগার ফলে আর কিছুটা জিনগত কারণেও আর একটা প্রবলেম যেটা দেখা দেয় তা হল ফেকেলস৷

তবে মূলত ফর্সাদের এই সমস্যাটি বেশি করে দেখা যায়৷ ফেকেলস এর ফলে মুখে কালো রঙ খয়েরি ছোপ ছোপ দাগের সৃষ্টি হয় তবে এই সব সমস্যারই সঠিক চিকিত্সা করা হলে অনেকাংশেই তা নির্মূল করা সম্ভব৷

মুক্তির উপায় :
তিল বা আঁচিলের সমস্যা থেকে মুক্তির জন্য অনেক সময়েই ডারমেটোসার্জারির প্রয়োজন পরে৷ এক্ষেত্রে লোকাল আনাসথেসিয়া করেই অপারেশন করা হয় , তবে তার আগে কিছু রুটিন চেক আপের প্রয়োজন পড়ে যেমন, রক্তের নানা ধরনের পরীক্ষা , কোনও ওষুধে অ্যালার্জি আছে কিনা , এই সব দেখা হয় এবং কটা আঁচিল বা তিল আছে এই সব দেখে অপারেশনের ধরন নির্ধারণ করা হয় অনেক সময়ে ইলেকট্রো সার্জারিও করা হয় এক্ষেত্রে দাগও মিলিয়ে যায় খুব দ্রুত বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এগুলো ওপিডি পদ্ধতিতে করা হয় অর্থাত্, অপারেশনের পর কিছুক্ষণ রেখেই রোগীকে ছেড়ে দেওয়া হয়৷ থাকার প্রয়োজন পড়ে না৷

অপারেশনের পর চিকিত্সকের পরামর্শ অনুযায়ী চলা দরকার৷ সাধারণত এক্ষেত্রে কিছু বিধিনিষেধ থাকে।

১) অপারেশনের পর ভালো করে ড্রেসিং করা প্রয়োজন৷

২) পানি লাগানো একেবারেই উচিত্ নয়৷ তবে ইলেকট্রোসার্জারি হলে জল লাগালেও কোনও ক্ষতি হয় না৷

৩ ) যদি সেলাই পড়ে তাহলে পাঁচ থেকে সাত দিন পর সেলাই কাটতে হয়৷ মুখে , চিবুকে ফ্রেকেলস হলে সাধারণত মলম বা ওষুধেই কাজ হয়৷ ফ্রেকেলস যেহেতু সূর্যের আলো পড়লে বেশি করে হয় , তাই রোদে বেরোনোর আগে সানস্ক্রিন ক্রিম ব্যবহার করা অবশ্যই প্রয়োজন৷