মেইন ম্যেনু

জেনে নিন, বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেশের কথা

আমাদের এই পৃথিবী বিভিন্ন খণ্ডে খণ্ডে বিভক্ত। কোন দেশ অনেক বড় এলাকা জুড়ে বিস্তৃত আবার কোনটি অনেক কম জায়গা নিয়ে তৈরি। কোথাও রয়েছে রূপের বাহার আবার কোথাও রয়েছে আকস্মিক অসাধারণ কিছু বস্তু। আজ আমরা বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেশের কথা জানব।

৬.৬ বর্গ মাইল এলাকা নিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেশের কৃতিত্ব নিয়ে রেখেছে রাশিয়া। কানাডার তুলনায় এর আয়তন প্রায় ২.৮ বর্গমাইল বেশি। প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে এর ১৪টি সীমানা রয়েছে এবং এতে ৯টি টাইম জোন রয়েছে।

যেহেতু এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেশ তাই এখানে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন ধরণের বৈচিত্র্য দেখা যায়। এখানে বিভিন্ন বনভুমি থাকার পাশাপাশি অনেক পাহাড় রয়েছে। পর্যটকদের জন্য এখানে বিভিন্ন ধরণের আকর্ষণীয় স্থান রয়েছে।

cou22

এটি বিশ্বের অধ্যুষিত জমির প্রায় ১৭ শতাংশ এলাকা জুড়ে বিস্তৃত। যদিও এখানে পৃথিবীর মাত্র ২ শতাংশ লোকের বসবাস। প্রায় ১.৩ বিলিয়ন মানুষ নিয়ে চীন বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনবহুল দেশ, যেখানে পৃথিবীর প্রায় ১৯ শতাংশ মানুষ বাস করেন। ১৭ শতাব্দী থেকে ২০ শতাব্দীর মাঝে পৃথিবীর জনসংখ্যা ১৫০ মিলিয়ন থেকে ৪৫০ মিলিয়নে পৌঁছেছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর নাটকীয়ভাবে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার অনেকাংশে বেড়ে গেছে।

মাওয়ের শাসনামলে সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যা বৃদ্ধি পায়। কারণ তার শাসনামলে তিনি অধিক সন্তান জন্মদানের জন্য পরিকল্পনা করতে বলেছিলেন। কারণ তিনি মনে করেছিলেন, অতিরিক্ত জনসংখ্যা হলে বিভিন্ন দেশের সাথে যুদ্ধ করে তিনি সহজেই জয়লাভ করতে পারবেন।

পরবর্তীতে চায়নার জনসংখ্যা এতো বেশি বৃদ্ধি পায় যে, ১৯৭৯ সালে জনগণকে বলা হয় যে, একটি সন্তানের বেশি না নিতে। তখন জনসংখ্যা কমানোর জন্য বিভিন্ন ধরণের রুলস করা হয়।

cou33

হয়ত আর কিছুদিন পর সবচেয়ে জনবহুল দেশের টাইটেল বা উপাধি চীন থেকে সরিয়ে নেয়া হতে পারে। ইউ এন থেকে জানা যায় আগামী ১৫ বছরের মধ্যে চায়না ও ভারতের জনসংখ্যা ১.৫ বিলিয়নে পৌঁছাতে পারে। কারণ চায়নার জনসংখ্যা দিনদিন কমে যাচ্ছে এবং ভারতের জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

রাশিয়ার পরের স্থানেই রয়েছে কানাডা। তবে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙ্গে যাবার পড়ে বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেশ কানাডা।–সূত্র: হিস্টোরি।