মেইন ম্যেনু

জেনে রাখুন মাইক্রোওয়েভ ওভেন ব্যবহারের ৭টি স্বাস্থ্য ঝুঁকি

মাইক্রোওয়েভ ওভেনের সাথে আমরা পরিচিত হলেও মাইক্রোওয়েভ কী তা আমরা অনেকেই জানি না।মাইক্রোওয়েভ হচ্ছে এক প্রকার চৌম্বক তাড়িত বিকিরণ বা রেডিয়েশন এটার বৈদ্যুতিক ও চৌম্বকীয় তরঙ্গ মাইক্রোওয়েভ ওভেনের ভেতরে চলাচল করে।

মাইক্রোওয়েভ ওভেন আমাদের আধুনিক জীবনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এটি ছাড়া আমরা রান্নার অনেক কিছুই তৈরি করতে পারিনা। খাবার গরম করা থেকে শুরু করে রান্না করা, কেক বানানো পর্যন্ত এটা আমাদের প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় একটি জিনিস হয়ে উঠেছে। কিন্তু তারপরও আমরা মাইক্রোওয়েভ ওভেনের স্বাস্থ্য ঝুঁকি এড়াতে পারিনা। অনেকেরই হয়তো জানা নেই এর ব্যবহারে অনেক স্বাস্থ্য ঝুঁকি রয়েছে। এটা খাবার পুষ্টিগুনকে নষ্ট করে দেয় এবং এর উচ্চ তাপমাত্রা খাবারকে ক্যান্সার তৈরি করার বস্তুতে পরিনত করে।

তাই এখানে মাইক্রোওয়েভ ওভেনে রান্না করার কিছু ক্ষতিকর দিক তুলে ধরছি-

খাদ্যের ভিটামিন নষ্ট করে-
যেসব খাবারে ভিটামিন বি১২ আছে যেমন মাছ,কলিজা ইত্যাদি যখন মাইক্রোওয়েভ অভেনে রান্না করা হয় তখন তা নষ্ট করে ফেলে।এছাড়া খাদ্যের ভিটামিন সি ও উচ্চ তাপে নষ্ট হয়ে যায়। মাইক্রোওয়েভ ওভেনের উচ্চতাপে ভিটামিন নষ্ট হয়ে ভিটামিন শূন্য একটি খাবার আমাদের হাতে আসে। এটা মাইক্রোওয়েভ ওভেনের একটি বেশ বড় খারাপ দিক।

বুকের দুধের পুষ্টিমূল্য নষ্ট করে-
যখন বুকের দুধ মাইক্রোওয়েভ ওভেনে গরম করা হয় তখন এটি সমস্ত পুষ্টিমূল্য হারায় এবং এতে থাকা ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধক বা এন্টিবডিগুলো মরে যায়।

খাদ্যের সামগ্রিক পুষ্টি বিনাশ-
মাইক্রোওয়েভ ওভেনের উচ্চ তাপ বিকিরনের ফলে খাদ্যের সব ধরনের পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়ে যায়। এটা খাবারের প্রোটিন, ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ নষ্ট করে দেয়।

খাদ্যে ক্যান্সার সৃষ্টিকারক উপাদান তৈরি করে-
যখন মাইক্রোওয়েভ ওভেনে প্লাস্টিকের বাটিতে খাবার গরম ও রান্না করা হয় তখন সেই প্লাস্টিক বাটি থেকে বিষাক্ত ক্যান্সার সৃষ্টিকারক উপাদান ছড়িয়ে খাবারে প্রবেশ করে।

রক্তের উপাদানের মাত্রায় পরিবর্তন-
মাইক্রোওয়েভ ওভেনের উচ্চ তাপে গরম করা দুধ ও সবজি রক্তের লোহিত কণিকার(RBC)মাত্রা কমায় এবং শ্বেত কণিকার(WBC) মাত্রা বাড়ায়। এছাড়া কোলেস্টেরলের মাত্রাও বৃদ্ধি করে।

হৃদস্পন্দনের পরিবর্তন-
মাইক্রোওয়েভ ওভেন থেকে রেডিয়েশন নির্গত হয়। যাদের অনিয়মিত হৃদস্পদন ও বুকের ব্যাথা রয়েছে তাদের মাইক্রোওয়েভ ওভেনে তৈরি খাবার খাওয়া উচিত নয়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমায়-
মাইক্রোওয়েভ অভেনে তৈরি করা পুষ্টিবিহীন ও এন্টিঅক্সিডেন্ট বিহীন খাবার নিয়মিত ভাবে খাওয়ার ফলে তা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উপর প্রভাব ফেলে।

তাই মাইক্রোওয়েভ অভেন ব্যবহার না করাই উত্তম তবে যদি ব্যবহার করতেই হয় তবে কম তাপমাত্রা ব্যবহার করা উচিত। কোন ধরনের যান্ত্রিক ত্রুটিযুক্ত ও ব্যবহৃত ওভেন ব্যবহার করা কোনোভাবেই উচিত নয়।

লেখক
শওকত আরা সাঈদা(লোপা)
জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ
এক্স ডায়েটিশিয়ান,পারসোনা হেল্‌থ
খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞান(স্নাতকোত্তর)(এমপিএইচ)