মেইন ম্যেনু

জেল থেকে ফিরেই অ্যাকশন ফিল্মে সঞ্জয়

মুম্বাই বিস্ফোরণ মামলায় অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে জেল খেটে ২৫ ফেব্রুয়ারি সকালে মুক্তি পেলেন সুপারস্টার অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত।আর এরইমধ্যে সামনে তিনি কোন্ কোন্ ছবিতে অভিনয় করবেন তা নিয়ে রীতিমত হৈচৈ পড়ে গেছে প্রযোজক ও নির্মাতা মহলে!

হ্যাঁ। মুন্না ভাই খ্যাত সঞ্জয় দত্ত দীর্ঘদিন পর ফিরলেন জেল থেকে। আর তার ফেরায় রীতিমত আহ্লাদিত নির্মাতা ও প্রযোজকরা। এই যেমন সকালে যখন জেল ফেরত সঞ্জয়কে স্বাগত জানাতে সবাই প্রস্তুত, ঠিক সেই মুহূর্তে সঞ্জয়কে দিয়ে চলতি বছরেই একটি সুপার ডুপার অ্যাকশন ফিল্ম নির্মাণের ঘোষণা দিলেন ‘ব্যাঙ ব্যাঙ’ খ্যাত নির্মাতা সিদ্ধার্থ আনন্দ।

হ্যাঁ। চলতি গ্রীষ্মেই সুপারস্টার অভিনেতা সঞ্জয় দত্তকে নিয়ে পুরোদমে একটি অ্যাকশনধর্মী সিনেমা নির্মাণের কথা ভাবছেন সিদ্ধার্থ।

সঞ্জয়ের সঙ্গে প্রথমবার কাজ করার মনোবাসনা জানিয়ে সিদ্ধার্থ বলেন, ‘হ্যাঁ, শিগগিরই সঞ্জয় দত্তকে নিয়ে একটি সিনেমা করতে যাচ্ছি। এটা পুরোদমে একটি অ্যাকশনধর্মী সিনেমা। থ্রিলও থাকবে। আর ছবির শুটিং শুরু হবে আসছে গ্রীষ্মেই!’

ছবিতে অ্যাকশন থ্রিল সবই থাকবে। কিন্তু রোমান্স? এমন প্রশ্নে কৌশলী উত্তর দেন নির্মাতা সিদ্ধার্থ। বললেন, সবকিছু এখনই বলছি না। আনুষ্ঠানিক ঘোষণার জন্য অপেক্ষা করতেও বললেন সবাইকে।

শুধু সিদ্ধার্থ’র ছবিতেই নয়, বরং জেল থেকে ফিরে সঞ্জয় দত্তের কাজ করার কথা রয়েছে অন্তত পাঁচটি সিনেমায়। এরমধ্যে উমেশ শুক্লার নাম ঠিক না হওয়া একটি সিনেমায় তাকে দেখা যাবে। এছাড়া ইন্দ্র কুমারের ‘ধামাল’-এর থার্ট সিক্যুয়াল এবং ‘মুন্না ভাই’ সিরিজের একটি সিনেমাতেও দেখা যাবে তাকে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ পাঁচ বছর কারাবাস শেষে ২৫ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার পুনের ইয়ারওয়াদা জেল থেকে মুক্তি পেলেন বলিউডের ‘মুন্না ভাই’ খ্যাত এই সুপারস্টার। স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৪০ মিনিটের দিকে সঞ্জয় দত্ত কারাগার থেকে বের হয়ে আসেন। বেরিয়ে কারাগারের দিকে ফিরে সাঁটানো পতাকায় স্যালুট করেন তিনি। কারাগার থেকে বেরিয়ে সেখানে অপেক্ষায় থাকা স্ত্রী মান্যতাকে নিয়ে পুনের বিমানবন্দরে পৌঁছান।মুম্বাইয়ে ১৯৯৩ সালে সিরিজ বোমা হামলায় ব্যবহৃত অস্ত্র কেনার দায়ে দণ্ডিত হয়েছিলেন তিনি।