মেইন ম্যেনু

জোয়ারের পানি বাড়ছে, বিচ্ছিন্ন চরে জনমনে আতংক

ঘূর্নিঝড় রোয়ানের প্রভাবে পটুয়াখালী জেলার বঙ্গোপসারের নিকটবর্তী এলাকায় রাতে স্বাভাবিক জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিচ্ছিন্ন চরে আশ্রয় কেন্দ্র কম থাকায় সেখানকার মানুষের মনে বাড়ছে আতংক।

বঙ্গোপসাগরের নিকটবর্তী রাঙ্গাবালী উপজেলার প্রত্যন্ত চরআন্ডা গ্রামের রেডক্রিসেন্ট সিপিপি টিম লিডার মো: চান মিয়া রাত ১০ টার দিকে জানান, ঐ এলাকার প্রায় তিন হাজার মানুষের আশ্রয়ের জন্য একটি মাত্র সাইক্লোন শেল্টার রয়েছে। এ ছাড়াও রেডক্রিসেন্টর একটি পরিত্যাক্ত সাইক্লোন সেল্টার রয়েছে।
এই সাইক্লোন সেল্টারকেই প্রস্তুত করা হয়েছে আশ্রয়ের জন্য।

তিনি আরো জানান, চর আন্ডা গ্রামের পূর্ব পাশে প্রায় ৫ থেকে ৬ কিলোমিটার এলাকা রয়েছে বেড়ীবাঁধহীন। সেখানে প্রায় ১ হাজার লোক বাস করে। তারা রয়েছে সবচেয়ে ঝুকির মধ্যে। ইতিমধ্যে তিনি ১৫ জন সিপিপি সদস্য নিয়ে প্রচার চালিয়েছেন সাইরেন বাজিয়ে। রেডক্রিসেন্টের হ্যান্ড মাইক নষ্ঠ থাকায় মসজিদের মাইক দিয়ে সতর্কবানী প্রচার চালাচ্ছেন তারা।

তিনি জানান, তাদের চরটি বঙ্গোপসাগরের মোহনায় হওয়ায় রাতের প্রথম জোয়ারেই স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৩ থেকে ৪ ফুট পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় চরবাসীর মনে এক অজানা আতংক বিরাজ করছে।
এদিকে, উপকুলীয় উপজেলা গলাচিপার চরবিশ্বাসের প্রত্যন্ত চর বাংলা গ্রামে দুই সহ�্রাধিক মানুষ বসবাস করলেও সেখানে একটি মাত্র আশ্রয় কেন্দ্র রয়েছে। যার ধারন �মতা সর্বোচ্চ পাচশ’। ইতিমধ্যে সেখানকার জনগনকে সাত নম্বর সিগন্যাল ঘোষনার পরই সিপিপির সদস্যরা হ্যান্ডমাইক, সাইরেন নিয়ে নিরাপদে আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য প্রচার চালানো সহ সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সেখানকার সিপিপি টিম লিডার হারুন-অর-রশিদ।

এদিকে রাত বাড়ার সাথে সাথে গুমোট আবহাওয়ার পাশাপাশি বৃষ্টিপাত যেমন বৃদ্ধি পাচ্ছে, তেমনি জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় জেলার চরাঞ্চলের জনমানুষের মনে আতংক বৃদ্ধি পেয়েছে।

পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক একেএম শামিমুল হক ছিদ্দিকী জানান, সাত নম্বর সিগন্যাল ঘোষনার পরপরই প্রত্যন্ত এলাকার লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে আসার জন্য প্রচারনা জোরদার করা হয়েছে। ইতিমধ্যে লোকজন আশ্রয় কেন্দ্র্র্র্রগুলিতে আসা শুরু করেছে। জেলার ২৩০ টি সাইক্লোন সেল্টার সহ ৩৩১ টি ভবনকে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ঘোষনা করে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আগামীকাল সকাল ১১ টায় দূর্যোগ ব্যবস্থাপনার উপর এক জরুরী সভা আহবান করা হয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক।