মেইন ম্যেনু

জ্যোতিষ মানতেই পারেন, তবে এই ৮টি কথা একদম বিশ্বাস করবেন না…

এটা প্রমাণিত সত্য যে, মানুষ তার সমস্যার সময়েই জ্যোতিষীদের কাছে বেশি আসেন। আর এই সময়ে জ্যোতিষীরা এমন অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকেন যা একেবারেই ভিত্তিহীন।

জ্যোতিষীদের বিরুদ্ধে লোক ঠকানোর অভিযোগ নতুন কিছু নয়। এক শ্রেণির জ্যোতিষী সব সময়েই নানা প্রচারের মধ্য দিয়ে কিছু অবাক-দাবি জানিয়ে থাকেন। কিন্তু সতর্ক থাকা উচিত। মনে রাখা উচিত, কিছু বিষয়ের সমাধান জ্যোতিষের মাধ্যমে আদৌ সম্ভব নয়।

১। জ্যোতিষ সমাধানে কোনও অসুখ সারানো যায় না। এ জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়াই একমাত্র কর্তব্য।

২। ধরা যাক, কোনও জ্যোতিষীকে কোনও মৃত ব্যক্তির কোষ্ঠী দেওয়া হল। তিনি দুম করে বলে দিলেন, ‘‘এ এখনও বেঁচে রয়েছে।’’ এ সব বুজরুকি। জেনে নিন, কোনও মানুষের কোষ্ঠী বিচার করে বলা সম্ভব নয়, তিনি জীবিত না মৃত।

৩। যে যা-ই দাবি করুন, চ্যালেঞ্জ করে ১৫ মিনিট থেকে ১৫ দিন, কোনও সময়কালের মধ্যেই কাউকে বশীকরণ সম্ভব নয়।

৪। কোনও রকম প্রতিবিধান করে ভাগ্য বদল সম্ভব নয়। সরকারি চাকরি পাইয়ে দেওয়া সম্ভব নয়।

৫। জ্যোতিষ মতে ৯টি গ্রহের জন্য ৯টি গ্রহরত্ন ধারণ করলে সব মঙ্গলময় হয়ে উঠবে এমন বিশ্বাস একেবারেই ঠিক নয়।

৬। কোনও পাথর বা মূল-এর সাহায্যে সন্তানধারণ সম্ভব নয়।

৭। জ্যোতিষ বিচার বা তার সমাধান কখনও পুত্র বা কন্যাসন্তান জন্মের নিশ্চয়তা দিতে পারে না।

৮। জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে ‘হবেই’ বা ‘হবেই না’ বলে কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় না।