মেইন ম্যেনু

ছাত্রলীগের সকল সংবাদ বর্জনের সিদ্ধান্ত

জয়পুরহাটে সাংবাদিককে অপহরণ চেষ্টায় ৮ছাত্রলীগ নেতার নামে মামলা

দেশ টিভি ও দৈনিক করতোয়ার জয়পুরহাট প্রতিনিধি মোস্তাকিম ফাররোখকে অপহরণ করে নিয়ে যাবার চেষ্টার অভিযোগে জয়পুরহাট জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফিজু ও আলমগীর সহ ৮নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার জয়পুরহাট প্রেসক্লাবে এ ঘটনার প্রতিবাদে সাংবাদিকদের জরুরী সভায় ছাত্র লীগের সকল সংবাদ বর্জন এবং দোষী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্ত গ্রহনের পর রাত ৯টায় সাংবাদিক মোস্তাকিম ফাররোখ বাদী হয়ে জয়পুরহাট সদর থানায় এ মামলা দায়ের করেন।থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন মামলা রেকর্ডের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে শুক্রবার বিকালে এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি।

মামলায় অন্যান্য আসামীরা হলেন- জয়পুরহাট জেলা ছাত্রলীগের সদস্য অপু,ওই কলেজের জুুবিলি হল শাখা ছাত্রলীগের আহবায়ক আবু তাহের, যুগ্ম আহবায়ক রাকিব, জয়পুরহাট সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সদস্য মিলন, পৌর ছাত্রলীগ নতুনহাট শাখার যুগ্ম আহবায়ক সাগর, জয়পুরহাট সরকারি কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র ও ছাত্রলীগ কর্মী আব্দুল মোমিন সহ আরো ৩/৪জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার (১২ আগষ্ট) রাত ৮টায় পেশাগত কাজে ক্যামেরা ও ল্যাপটপ নিয়ে শহরের বৈরাগীর মোড় এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে বের হবার সময় সাংবাদিক মোস্তাকিম ফাররোখ দেখেন উল্লেখিত ছাত্রলীগ নেতারা নিজেদের মধ্যে চিৎকার করে অশ্লিল ভাষায় গালিগালাজ করছিল। এ সময় ওই সাংবাদিকের বাড়ীতে স্ত্রী, মেয়ে ও আতœীয় স্বজন থাকায় তাদের গালি-গালাজ বন্ধ করে স্থান ত্যাগ করার অনুরোধ জানান।

কিন্তু ছাত্রলীগ নেতারা কিছু বুঝে উঠার আগেই তার ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে লাপটপ ও ক্যামেরা কেড়ে নেয়া এবং তাকে অপহরণ করে নিয়ে যাবার চেষ্টা করে । এছাড়াও ছাত্রলীগের ওই বিক্ষুব্ধ নেতারা তার বাড়ী-ঘর ভাংচুরের হুমকি-ধামকি দেয়।এ সময় তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়।

জয়পুরহাট প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল জানান,মোস্তাকিম ফাররোখের ওপর হামলার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের এক জরুরী সভা থেকে ছাত্রলীগের সকল সংবাদ বর্জন এবং দোষীদের বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সাংবাদিক মোস্তাকিম ফাররোখ জানান, এ বিষয়টি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সহ কয়েকজন নেতাকে অবগত করা হলে তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের অপহরণ চেষ্টার প্রমাণ পান। পরে তিনি ছাত্রলীগের ওই সব নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন।