মেইন ম্যেনু

জয়পুরহাটে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ নেত্রীবৃন্দের ওপর হামলা

জয়পুরহাটে জন্মাষ্টমী উদযাপন উপলক্ষে শুক্রবার রাতে জয়পুরহাট শিব মন্দির প্রাঙ্গনে আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় দুর্বৃত্তদের হামলায় বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য,জেলা কমিটির সভাপতি , দৈনিক মায়ের আঁচল এর সম্পাদক ও প্রকাশক এবং জয়পুরহাট প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল সহ দুইজন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে গুরুত্বর আহত উজ্জল কুমার সরকার কে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, জয়পুরহাট শিব মন্দির প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত সভার শেষ পর্যায়ে পাঁচবিবি উপজেলার রুনিহালী গ্রামের বংকিম চন্দ্র মন্ডর (৩০)সহ ৪/৫ জন জেলার হিন্দু নেত্রীবৃন্দের বিরুদ্ধে লিখা লিফলেট বিতরনকালে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের জয়পুরহাট পৌর কমিটির সাধারন সম্পাদক উজ্জল কুমার সরকার তাদের কাছে লিফলেট বিতরনের কারন জানতে চাইলে তারা তার ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জেলা কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল তাকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে তার ওপরও তারা হামলা চালায় ।

এ খবর পুলিশ জানতে পেয়ে দ্রুত সেখানে উপস্থিত হয়ে বঙ্কিম(২৪) নামে এক হামলাকারীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় তবে তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। এ হামলায় মারাত্মক আহত উজ্জল কুমার সরকারকে দ্রুত জয়পুরহাট আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ হামলার ঘটনার ব্যাপারে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ও সাংবাদিক নেতা অ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল বলেন ইতোপূর্বে পাঁচবিবি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছ থেকে মন্দির উন্নয়ন নামে ভূয়া প্রকল্প দাখিল করে ১টন চাল গ্রহন করে হামলাকারীরা। পরে ওই প্রকল্প ভুয়া প্রমানিত হলে হামলাকারীরা ওই উত্তোলনকৃত চাল ফেরত দিতে বাধ্য হয়েছিল । এই কারনেই অ্যাডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মন্ডল সহ ঐক্য পরিষদের নেত্রীবৃন্দের ওপর তারা ক্ষিপ্ত ছিল । ওই ঘটনার জের ধরে শুক্রবার রাতে এ হামলার ঘটনাটি ঘটেছে। এ ব্যাপারে রাতেই জয়পুরহাট সদর থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে দোষদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় ও জয়পুরহাট জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দরা।