মেইন ম্যেনু

জয়পুরহাটে ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী প্রহারের মামলায় শিক্ষক গ্রেফতার না হওয়ায় সংবাদ সম্মেলন

শিশুর হাত থেকে খেলনা কেড়ে নেয়াকে কেন্দ্র করে সাজু ইসলাম নামে পঞ্চম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে সোমবার দুপুরে ওই শিক্ষক সহ অন্যান্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার পরিবার।তাদের অভিযোগ,ওই ঘটনার কারনেইে এবার সাজু সমাপনী পরীক্ষা দিতে পারে নি।এ ব্যাপারে জয়পুরহাট প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে লিখিতভাবে এই অভিযোগ গুলি করেছেন মোছাঃ মালেকা বেগম।

লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, গত ৩নভেম্বর জয়পুরহাট সদর উপজেলার আমদই ইউনিয়নের তেঘরা দ্বন্ডপানি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র (সমাপনি পরীক্ষার্থী) সাজু ইসলামসহ কয়েকজন ছাত্রছাত্রী ক্লাস শেষে বিকেলে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় একই স্কুলের ছাত্রী রিভা আকতার একই স্কুলের ছাত্র তানভিরের হাত থেকে ঘুড়নি জাতীয় খেলনা কেড়ে নিলে সাজু রিভার হাত থেকে ঘুড়নিটি নিয়ে তানভিরকে দেয় এবং যথারীতি বাড়িতে চলে যায়। কিছুপর মীরগ্রাম চৌমুহনী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষাক নূরুল ইসলামসহ কয়েকজন সাজু ইসলামের বাড়িতে গিয়ে তাকে খোঁজাখুজি করে এবং তাকে পেয়ে বেধরক মারধর করতে থাকে। তাদের মারধরে শরীরের নানা স্থানে গুরুত্বর জখম হয়। এ অবস্থায় তাকে ফেলে রেখে নূরুল ইসলাম তার সঙ্গীদের নিয়ে চলে যায়।

পরে এলাকাবাসী সাজু ইসলামকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করে। ৪দিন হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার পর তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক ) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। আহত সন্তানের চিকিৎসায় ব্যস্ত থাকায় ঘটনার কয়েকদিন পর ১৪নবেম্বর জয়পুরহাট ‘ক’ অঞ্চল আদালতে মামলা দায়ের করলে আদালত মামলাটি সদর থানায় নথিভুক্ত করার নির্দেশ দেয়।
থানায় মামলাটি নথিভুক্ত হলেও অজ্ঞাত কারনে পুলিশ আসামীদের গ্রেফতার করছে না মর্মে সাংবাদিক সম্মেলনে সাজুর মা অভিযোগ করেন।