মেইন ম্যেনু

নীরব দর্শকের ভূমিকায় পুলিশ

‘জয় বাংলা’ বলে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা

টিউশন ফি থেকে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) প্রত্যাহারের দাবিতে ঢাকার রাপা প্লাজার সামনে ধানমন্ডি ২৭ নম্বরে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর দুই দফা হামলা চালানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে সাড়ে আটটার দিকে ‘জয় বাংলা’ বলে কয়েকজন যুবক হামলা চালান। এ সময় পুলিশকে নীরবে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।

ধানমন্ডি ২৭ নম্বরের রাপা প্লাজার সামনে থেকে আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, রাত সাড়ে আটটার দিকে ২০-২৫ জন যুবক অতর্কিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালান। তাঁরা ‘জয় বাংলা’ বলে হামলা চালালেও সেখানে কর্তব্যরত শতাধিক পুলিশ নীরব দাঁড়িয়ে ছিল। এর দু-এক মিনিট পর হামলাকারী যুবকেরা পুলিশের পাশে গিয়ে দাঁড়ান। এ সময় পুলিশের সদস্যরা তাঁদের বলেন, ‘এখানে দাঁড়ানো যাবে না।’ এ ঘটনার পর গণমাধ্যমকর্মীদের উপস্থিতি বাড়লে ওই যুবকেরা চলে যান। আবার রাত নয়টার দিকে লাঠিসোঁটা নিয়ে কয়েকজন যুবক আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালিয়ে দ্রুত চলে যান। এ হামলার পর আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা আবার পথরোধ করে আন্দোলন শুরু করেন।

পুলিশের নীরব দাঁড়িয়ে থাকার ব্যাপারে জানতে চাইলে তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার বলেন, ‘আন্দোলনকারীরা নিজেরা নিজেরা মারামারি করছে, আমরা আটকাব কেন?’ শিক্ষার্থীরা মারামারি করলেও আপনারা থামালেন না কেন—জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের থামানোর দরকার কী?’

প্রত্যাহারের দাবিতে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করায় রাজধানীর সড়কগুলোতে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজটের। এতে দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা।

‘শিক্ষা কি পণ্য, ভ্যাট কী জন্য’-ব্যানার নিয়ে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শিক্ষার্থীরা ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়, ধানমন্ডির স্টেট ইউনিভার্সিটি, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার প্রধান ফটকের সামনে, মহাখালী ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের সড়কে, ধানমন্ডি ২৭ নম্বর রাপা প্লাজা ও চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়সহ বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ চালান। অন্যান্য স্থানে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পুলিশ ঘিরে রাখে।

1df59c9b88e87d3043e7e28c1d19a340-27 2cc569a3bd4cede7d29bca99462c0c66-28