মেইন ম্যেনু

ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে ফেসবুকে বন্ধুত্ব

বিকেল ৩টা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাসভবনের অদূরে দাঁড়িয়ে দুই যুবকের কথোপকথন। একজন আরেকজনকে বলছে, দোস্ত এফবিতে তোর ফ্রেন্ড এর সংখ্যা কত? প্রশ্নকর্তার উত্তরে দ্বিতীয়জন বললেন, পাঁচ হাজারের কোটা পূর্ণ হয়েছে সেই কবে।

প্রথম বন্ধুর ফের প্রশ্ন করলেন, পাঁচ হাজার বন্ধুদের সবাই কি তোর পরিচিত? দ্বিতীয়জনের উত্তর, কেনরে, এ কথা সত্যি যে বন্ধুদের অনেকের সম্পর্কেই ভাল করে জানি না । যে ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠিয়েছে তাকেই একসেপ্ট করেছি।

এবার প্রথমজন বললো, আমরা কারও সম্পর্কে ভাল করে না জেনে শুনে ফেসবুকে বন্ধুর সংখ্যা বাড়াচ্ছি। কিন্তু আমরা কি জানি ফেসবুক বন্ধুদের মধ্যেও জঙ্গি থাকতে পারে।

শুক্রবার রাতে গুলশান ২ নম্বরের হলি আর্টিসান রেস্টুরেন্ট অ্যান্ড বেকারিতে হামলার ঘটনায় ২২ জন বিদেশি, ২ পুলিশ কর্মকর্তা ও ৬ জঙ্গি নিহত হওয়ার ঘটনার পর ফেসবু্ক বন্ধুর তালিকায় জঙ্গীদের থাকা নিয়ে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

সেনাবাহিনীর অংশগ্রহণে অপারেশন থান্ডারবোল্ট অপারেশনে নিহত ছয় জঙ্গীরা সকলেই উচ্চশিক্ষিত ও ধনাঢ্য পরিবারের সন্তান। তাদের মৃত্যুর পর ফেসবুকে চলচ্চিত্র অভিনেতা থেকে শুরু করে বিভিন্ন পর্যায়ের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সাথে তাদের সেলফি ফটোগ্রাফসহ দেখা যাচ্ছে।

শনিবার ফেসবুকে চিত্রনায়ক ফেরদৌসের সঙ্গে অভিযানকালে নিহত কথিত জঙ্গির সেলফি ফটো তোলাকে কেন্দ্র করে নানা সমালোচনার ঝড় উঠেছে। অনেকেই ফেরদৌসের দিকে আঙ্গুল তুলে তার সাথে জঙ্গিদের সম্পর্ক রয়েছে কি না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে গোয়েন্দা পুলিশের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ফেসবুকে বন্ধুত্ব এখন হুজুগে চলছে। কার কতো বেশি বন্ধু আছে তা দিয়ে সামাজিক মর্যাদা বৃদ্ধি পায় এমন বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। একজন সম্পর্কে ভাল করে না জেনে না শুনে বন্ধুত্ব স্থাপিত হচ্ছে। এতে বিপদের ঝুঁকি বাড়ছে।

রাজধানীর লালবাগ এলাকার একজন প্রবীণ ব্যক্তি বছর খানেক আগে ফেসবুক একাউন্ট খুলেন। ইতিমধ্যেই তার বন্ধুর সংখ্যা দুই হাজার ছাড়িয়ে গেছে। কিন্তু তিনি স্বীকার করেন বন্ধুদের মধ্যে খুব বড় জোর শ’ খানেককে তিনি চেনেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক বলেন, তার বন্ধুর সংখ্যা পাঁচ হাজার পেরিয়ে গেছে। কিন্তু সবার সাথে তার ব্যক্তিগতভাবে চেনা জানা নেই। সহজেই বন্ধুত্ব নিয়ে কখনও বিপদে পড়তে পারেন এ বিষয়টি মাথায় ছিল না। কিন্তু শুক্রবার গুলশানের রেস্টুরেন্টে হামলাকারীদের পরিচয় প্রকাশের পর থেকে কিছুটা আতঙ্কেই রয়েছেন। তিনি বলেন, কে বলবে তার বন্ধুত্বের তালিকায় হয়তো জঙ্গি রয়ে গেছে।