মেইন ম্যেনু

ঝেড়ে ফেলুন অতিরিক্ত খাবার পর ভারী পেটের অস্বস্তি!

পার্টি, বিয়ে বা নানারকম অনুষ্ঠান, ডিসেম্বর- জানুয়ারির এই সময়টা এসব হুড়োহুড়িতে কেটে যায় সবারই। আর এর ভেতরে কোন অনুষ্ঠানে গিয়েছেন অথচ ভূড়িভোজন করেননি বা করতে বাধ্য হননি সেটা খুবই বিরল ব্যাপার। অনুষ্ঠান- সেটা বিয়ে হোক কিংবা পার্টি, উপচে পড়া খাবারসহ প্লেট এবং অতিরিক্ত খাবার ইচ্ছে না হলেও জোর করেই নিতে ও খেতে হয় সবাইকে। অনেকে আবার ভালোলাগা থেকে কিংবা অনেকটা ঝোঁকের বশেই খেয়ে ফেলেন অনেকটা খাবার। কিন্তু এরপর? এই ভারী পেটটাকে সামলে নিয়ে দ্রুত খাবারগুলোকে হজম করতে হবে তো। সেটা করবেন কি করে? চলুন দেখে আসি চটজলদি অতিরিক্ত বোঝাই পেটটাকে খালি করে ফেলার কৌশল।

অতিরিক্ত খাবার খেয়ে ফেলার পর অনেকেরই একটা খারাপ লাগার বোধ সৃষ্টি হয় নিজেকে নিয়ে। অনেকে চিন্তিত হয়ে পড়ে তার শরীরের বাড়তি মেদের কথা ভেবে। এ্যাকাডেমি অফ নিউট্রিশন এন্ড ডায়েটিকসের মুখপাত্র টরি জোনস আরমুলের ভাষ্যমতে, নিজেকে দোষী ভাবাটা স্বাস্থ্যসম্মত খাবারের দিকে নিয়ে যায়না কাউকে এবং অতিরিক্ত খাবার অনেক সময় আবেগের সাথে জড়িত থাকে। আর তাই এই আবেগ আর ক্যালোরির চিন্তাকে মাথা থেকে বাদ দিয়ে নিজের ভেতরের অতিরিক্ত খাবার খাওয়ার অস্বস্তিটাকে তাড়িয়ে দিতে মেনে চলুন এই কয়েকটি পদ্ধতি।

১. একটু হাঁটা

খাবার পরে হালকা হাঁটাহাটি করাটা বেশ কাজের। তবে ভারী খাবারের পর হাঁটলে সেটা সত্যিই শরীরের পক্ষে ভাল ফলাফল নিয়ে আসে। তবে খুব দ্রুত না হেঁটে মৃদু চালে হাঁটুন। গবেষনায় দেখা গিয়েছে যে যারা ভারী খাবারের পর হাঁটার অভ্যাস রাখেন, অন্যদের তুলায় শরীরে চর্বি জমাট বাধার প্রবণতা তাদের ভেতরে ৭০ শতাংশ কম থাকে ( রিয়েল সিম্পল )।

২. যোগব্যায়াম করা

যোগব্যায়াম মানুষের রক্ত চলাচল ব্যবস্থা, হৃদস্পন্দনকে ধীর গতির করে তোলে। সেই সাথে এটি আপনার শরীরে উত্পন্ন করে সেরোটোনিন ও অক্সিটোসিন নামক মন ভালো করে দিতে সাহায্য করা দুইটি হরমোন। ফলে অতিরিক্ত খাবারের ফলে থাকা মানসিক চাপ থেকে মুক্ত করে এটি আর দেয় শারিরীক প্রশান্তিও। শরীরের নানারকম ব্যথা আর সমস্যাকেও দ্রুত কমিয়ে দেয় যোগব্যায়াম ( রিয়েল সিম্পল )।

৩. চুইংগাম চিবুনো

অতিরিক্ত খেয়ে ফেললে শরীর সময় চায় খাদ্যদ্রব্যকে হজম করার। কিন্তু যদি এরপরেও আপনি খেতেই থাকেন তাহলে শরীরকে একই সাথে ইতিমধ্যে খেয়ে ফেলা এবং খেতে থাকা খাবার- দুটোকেই হজম করতে হয়। অথচ পাচক রস কিন্তু সেই পরিমাণে উত্পন্ন হচ্ছে না শরীরে। আর তাই খাবার তাড়াতাড়ি হজম করার জন্যে খাবারের পর মুখে একটা চিনি বিহীন চুইংগাম রেখে চিবোতে থাকুন ( লিগ্যালি ভেগান )। দেখবেন একটু তাড়াতাড়িই পেট হালকা লাগছে আপনার।

৪. চা পান

পেটের খাবারগুলোকে পরিপাকের মাধ্যমে ভারী ভাবকে কমাতে আদা, লেবু ও মরিচের গুড়ো দিয়ে এক কাপ পেপারমিন্ট চা পান করে ফেলুন। পেপারমিন্ট, আদা বা লেবু- এগুলোর সবটাই খাবার হজম হতে সাহায্য করে ( লিগ্যালি ভেগান )। আদা ব্যাকটেরিয়ারোধক এবং পেটের সমস্যার নিরাময়ক। এটি প্রথমে কুচি করে কেটে নিন। এরপর সেটাকে একটি পাত্রে রেখে তাতে পেপারমিন্ট চা ঢেলে শেষে একটু লেবু চিপে আর খানিকটা গুড়ো মরিচ ছিটিয়ে পানীয়টি পান করে ফেলুন। দেখবেন দ্রুত আপনার পেটের অস্বস্তি ও ভারী ভাব চলে গিয়েছে।

৫. পানি পান

হজমের জন্যে পানির চাইতে ভালো আর কোন কিছুই কাজ করেনা। আর তাই খাবার একটু বেশি খেয়ে ফেললে বেশি করে পানি পান করুন। তবে খেয়াল রাখুন যাতে খাবারের ২০ মিনিট পর পানি পান করা হয় ( অ্যালোহা )। তবে আরো ভালো ফলাফল পেতে পানিটা হালকা গরম করে তাতে লেবুর রস মিশিয়ে নিতে পারেন।