মেইন ম্যেনু

টাইটানিক এর চেয়েও নির্মম ‘জাহাজ ডুবি’

বেশির ভাগ মানুষই টাইটানিক জাহাজ ডুবির ইতিহাস ও তার ক্ষয়ক্ষতির সাথে পরিচিত। কারণ এটা নিয়ে হলিউডে একটা চলচিত্র নির্মাণ হয়েছে যা ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। কিন্তু আমরা হয়তো অনেকেই জানি না যে, টাইটানিক এর চেয়েও বড় ও নির্মম জাহাজ ডুবির ইতিহাস এ পৃথিবীতে আছে। চলুন জেনে নেই ইতিহাসের মারাত্মক ও ভয়াবহ কিছু জাহাজ ডুবির ইতিহাস:

dona paz

এমভি ডোনা পাজ (MV Doña Paz):
ফিলিপাইনের এই যাত্রীবাহী জাহাজটি ১৯৮৭ সালের ২০ ডিসেম্বর অন্য একটি জাহাজের সাথে সংঘর্ষের ফলে ব্যারেল গ্যাসোলিন ব্রাস্ট হয়ে ডুবে যায়। সেই সময় জাহাজটি প্রায় ৮,৮০০ ব্যারেল গ্যাসোলিন বহণ করছিল। এই দুর্ঘটনায় প্রায় ৪,৩৭৫ জন লোক মৃত্যুবরণ করে। আগুন থেকে বাঁচতে অনেক যাত্রী হাঙর অধ্যুষিত সাগরের পানিতে ঝাঁপিয়ে পড়তে বাধ্য হয়। সামুদ্রিক ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বেসামরিক লোক এ দুর্ঘটনায় মারা যায়।

joola

এমভি জোলা (MV Joola):
এই জাহাজটি ২০০২ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর জাম্বিয়ার সমুদ্র উপকূলে উল্টে যায়। এটি ছিলো সেনেগালের সরকারি জাহাজ। এই দুর্ঘটনায় ১,৮৬৩ জন লোক মৃত্যুবরণ করে। বেসামরিক লোক মৃত্যুর দিক থেকে এটি সামুদ্রিক ইতিহাসে দ্বিতীয় ভয়াবহ দুর্ঘটনা। জাহাজটিতে অবস্থানরত ২,০০০ যাত্রীর মধ্যে মাত্র ৬৪ জন বেঁচে আসতে পেরেছিল।

Titanic

আরএমএস টাইটানিক (RMS Titanic):
ইতিহাসে সবচেয়ে আলোচিত দুর্ঘটনা টাইটানিক দুর্ঘটনা। ১৯১২ সালের ১৫ এপ্রিল যুক্তরাজ্য থেকে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে যাওয়ার পথে আটলান্টিক মহাসাগরে বিশাল আকৃতির বরফখণ্ডের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ডুবে যায় জাহাজটি। এই দুর্ঘটনায় ১,৫১৪ জন লোক মারা যায়। বেসামরিক লোকের মৃত্যুর দিক থেকে টাইটানিক দুর্ঘটনা সামুদ্রিক ইতিহাসে তৃতীয় ভয়াবহ দুর্ঘটনা। বরফখণ্ডের সঙ্গে ধাক্কা লেগে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

Empress of Ireland

আরএমএস ইমপ্রেস অব আয়ারল্যান্ড (RMS Empress of Ireland):
এই কানাডিয়ান জাহাজটি ১৯১৪ সালের ২৯ মে সেন্ট লরেন্স নদীতে নরওয়ের একটি জাহাজের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ডুবে যায়। এই দুর্ঘটনায় ৮৪০ জন যাত্রী এবং ১৭২ জন ক্রুসহ মোট ১,০১২ জন লোক মারা গেছে ধারণা করা হয়। নরওয়ের জাহাজটি ইমপ্রেস অব আয়ারল্যান্ডকে ডানদিক থেকে আঘাত হানে এবং জাহাজের নিচের দিকে অবস্থান করা প্রচুর যাত্রী প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই ডুবে যায়। জাহাজটি এত দ্রুত একদিকে কাত হয়ে যায় যে, লাইফ বোটগুলো ব্যবহার করা অসম্ভব হয়ে পড়ে। মাত্র ৪৬৫ জন লোক সেই দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে ফিরে আসতে পেরেছিল।-সূত্র: লিস্টভারসি।