মেইন ম্যেনু

টাইমলাইন: ক্ষণে ক্ষণে ‘সাকা-মুজাহিদের মৃত্যুদণ্ড’

সারাদেশের দৃষ্টি এখন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের দিকে। একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরী ওরফে চৌধুরী ও জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের ফাঁসির দণ্ড কার্যকরকে কেন্দ্র করে বাড়ছে আগ্রহ ও উত্তেজনা।

এরইমধ্যে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের কারাফটকে ভিড় বাড়তে শুরু করেছে উৎসুক মানুষের। সেখানে অবস্থান নেয়া গণমাধ্যম কর্মীরাও সরবরাহ করছেন প্রতি মুহূর্তের আপডেট। সর্বশেষ জানতে সঙ্গেই থাকুন …

রাত ৯: ৪৭ -ক্ষমা ভিক্ষার আবেদন নাকচ করেছেন রাষ্ট্রপতি।

রাত ৯: ৪৫ -কেন্দ্রীয় কারাগারের পৌঁছেছে মুজাহিদের পরিবার।

রাত ৯: ৩০ -কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতরে প্রবেশ করেন সাকার পরিবারের ১৭ জন।

রাত ৯: ২৮ -বঙ্গভবন থেকে বেরিয়ে যান সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক।

রাত ৯: ২৫ -কারাগারের সামনে থেকে সরিয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের।

রাত ৮: ৩০ -সাকা ও মুজাহিদের পরিবারের লোকজন কারাগারের উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছেন।

রাত ৮: ১৫ -সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য দুই পরিবারের লোকজনকে কারাগারে ডেকেছে কারা কর্তৃপক্ষ।

রাত ৮: ০০ -ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রবেশ করেছেন অতিরিক্ত আইজি প্রিজন কর্নেল মো. ফজলুর কবির।

রাত ৮: ০০ – ক্ষমাভিক্ষার আবেদন নিয়ে বঙ্গভবনে পৌঁছান আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক।

দুপুর ৩: ০০ -দিকে দুই ডেপুটি জেলার সর্বোত্তম দেওয়ান ও মো. আরিফ প্রাণভিক্ষার আবেদন নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আসেন।

দুপুর ২: ৩০ -কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ক্ষমাভিক্ষার আবেদনটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উদ্দেশ্যে পাঠানো হয়।বাংলামেইল