মেইন ম্যেনু

টাক এড়াতে হেয়ার মাস্ক

শরীরের যত্নের ব্যাপারে পুরুষের সবসময়ই উদাসীন থাকার বদনাম আছে। তাই চুল ও ত্বকও থেকে যায় অযত্ন আর অবহেলায়। অথচ সপ্তাহে মাত্র ১ দিন নিজের ব্যাপারে সচেতন হলে টেকো মাথার অস্বস্তি কুড়াতে হয় না। ঠিকমতো তেল দেয়া, শ্যাম্পু করা কিংবা অন্য কোনো কারণে চুল পড়া শুরু হয়। এক পর্যায়ে চকচকে একটা টাক হাসতে থাকে মাথার ওপর। তাই যারা এঅবস্থা থেকে রেহায় পেতে চান, তাদের উচিৎ কিছু হেয়ার মাস্ক ব্যাবহার করা। যেমন…

অলিভ অয়েলের হেয়ার মাস্ক

এই হেয়ার মাস্কটি তৈরি করতে চুলের ঘনত্ব ও দৈর্ঘ্য অনুযায়ী অলিভ অয়েল গরম করে নিন। এরপর এতে ১ থেকে ২ চা চামচ মধু এবং ১ চা চামচ দারুচিনি গুঁড়া দিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন। এই হেয়ার মাস্কটি চুলের গোঁড়ায় মাথার ত্বকে ভালো করে ঘষে লাগাতে হবে। ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলুন। এতে চুলের গোঁড়া মজবুত হবে এবং টাক পড়ার সম্ভাবনা একেবারেই কমে যাবে।

মেহেদি পাতার হেয়ার মাস্ক

এই মাস্কটি তৈরি করতে মেহেদি পাতা ১০০ গ্রাম এবং সরিষার তেল ২৫০ গ্রাম। একটি প্যানে সরিষার তেল ঢেলে গরম হতে দিন। এরপর এতে মেহেদি পাতাগুলো দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিতে হবে। ৫ থেকে ৭ মিনিট ফুটিয়ে চুলা থেকে নামিয়ে তেল ঠাণ্ডা হতে দিন। মেহেদি পাতা ছেঁকে নিয়ে এই তেল চুলের গোঁড়ায়, মাথার ত্বকে ভালো করে লাগিয়ে রাখুন ১ ঘণ্টা। এবার চুল শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন চুল পড়া কমে গেছে অনেকাংশেই।

জবা ফুলের হেয়ার মাস্ক

এক গ্লাস পানি একটি পাত্রে নিয়ে ফুটাতে দিন। পানি ফুটে উঠলে এতে ২ টি জবাফুল দিয়ে ৩ থেকে ৪ মিনিট আবারও ফুটাতে হবে। এরপর পানি ঠাণ্ডা হলে ছেঁকে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস দিয়ে মিশিয়ে নিন। পরিষ্কার মাথায় এই মিশ্রণটি ভালো করে লাগিয়ে রাখুন। জবা ফুলের রস নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে।



(পরের সংবাদ) »