মেইন ম্যেনু

নিখিল খুনে জামায়াত নেতাসহ আটক ৩

টাঙ্গাইল জেলার গোপালপুরে হিন্দু দর্জি নিখিল চন্দ্র জোয়ারদারকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় দুই জামায়াত নেতা ও এক বিএনপি কর্মীকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করেছে গোপালপুর থানা-পুলিশ।

রোববার টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলা থেকে আলমনগর মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আমিনুল ইসলাম, গোপালপুর উপজেলার জামায়াতের সেক্রেটারি বাদশা ও বিএনপি কর্মী ঝন্টুকে আটক করা হয়।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) আসলাম খান জানান, রোববার ভোরে তাদের আটক করা হয়েছে। তাদের টাঙ্গাইল পুলিশ সুপার কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। সেখানে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

এর আগে শনিবার রাতে গোপালপুর থানায় নিহত নিখিলের স্ত্রী আরতি জোয়ারদার বাদী হয়ে অজ্ঞাত তিনজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা ও পুলিশ বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে আরো একটি মামলা দায়ের করেন।

আটককৃতদের মধ্যে আমিনুল ইসলাম ২০১২ সালে নিখিলের বিরুদ্ধে করা ধর্ম অবমাননা মামলার বাদী ছিলেন। এদিকে এই হত্যাকাণ্ডের পর আইএস জড়িত কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে আসলাম খান জানান, বাংলাদেশে আইএসের কোনো অস্তিত্ব নেই। পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার কাছে এখন পর্যন্ত আইএসের অস্তিত্ব সম্পর্কে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, শনিবার দুপুরে গোপালপুর উপজেলার ডুবাইল বাজারে স্থানীয় গজ কাপড় ব্যবসায়ী ও দর্জি নিখিল চন্দ্র জোয়ারদারকে মোটরসাইকেলে করে আসা অজ্ঞাত তিন যুবক কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়।