মেইন ম্যেনু

টাচস্ক্রিন রান্নাঘর! (ভিডিও)

প্রযুক্তি দুনিয়ায় এখন চলছে টাচস্ক্রিনের জয়জয়কার। যেকোনো প্রযুক্তি পণ্যের ক্ষেত্রেই টাচস্ক্রিন থাকাটাকে গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হয়। মোবাইলের পর এখন ল্যাপটপেও দেখা মিলছে টাচস্ক্রিনের।

সম্প্রতি দক্ষিণ কোরীয় ইলেকট্রনিক্স পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ঘোষণা করেছে টাচস্ক্রিন যুক্ত স্মার্ট ফ্রিজ বাজারে আনার।

যেহেতু ব্যক্তিগত সকল পণ্যেই আস্তে আস্তে টাচস্ক্রিনের ছোঁয়া লাগছে তাই প্রযুক্তিবিদরা কল্পনা করতে শুরু করেছে যে মাত্র কয়েক বছরের মধ্যে আমাদের রান্নাঘর কেমন হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে অনুষ্ঠিত এই সপ্তাহে ইলেকট্রনিক্স ও প্রযুক্তি পণ্য প্রদর্শনী কনজিউমার ইলেকট্রনিক্স শো (সিইএস)-এ বিশ্ববিখ্যাত ওয়ার্লপুল কোম্পানি এমন একটি স্মার্ট রান্নাঘরের ধারণা প্রদর্শন করেছে যেখানে রান্না করার জন্য চুলা ওপরে একটি টাচস্ক্রিন ডিসপ্লেতে সবকিছু রাখতে হবে।

ভবিষ্যত রান্নাঘরের একটি ডেমো ভিডিওতে দেখা যায় যে, ভবিষ্যত রান্নাঘরে একটি ডিজিটাল টাচস্ক্রিন ডিসপ্লে থাকবে যেখানে পরিবারের সকল সদস্যর একটি দৈনন্দিন কার্য তালিকা থাকবে, স্বাস্থ্যসম্মত খাবার তৈরির ওপর টিপস থাকবে, স্কুল বাস এর সময়সূচি এবং যাত্রাপথের নির্দেশনা (একটি GPS স্ট্রিম মাধ্যমে) থাকবে।

স্মার্ট চুলার ওপর কোনো কিছু রাখলে তখন সেন্সরের মাধ্যমে সেটি কাজ করবে। যেমন একটি কফি কাপ এর ওপরে বসানো হলে নিখুঁত তাপমাত্রায় এটি গরম হবে। আপনার ছোট বাচ্চার সামনে বসানো একটি মনিটর এই টাচস্ক্রিন ডিসপ্লে এর সঙ্গে যুক্ত থাকবে, যেন রান্না করার সময়ও আপনি তার খেয়াল রাখতে পারেন।

যদিও এটিকে এখনো একটি সূদুর প্রসারী পরিকল্পা বলে মনে হতে পারে কিন্তু এ ধরনের ডিজিটাল রান্নাঘরের জন্য যে সকল প্রযুক্তি পণ্য প্রয়োজন তা ইতিমধ্যেই বাজারে চলে এসেছে।

তাই সকল দরকারী প্রযুক্তি পণ্যগুলোকে একসঙ্গে করে ভবিষ্যতে টাচস্ক্রিন সমৃদ্ধ একটি ডিজিটাল রান্নাঘরে রুপদান করা অসম্ভব কিছু নয়।

তথ্যসূত্র: ম্যাশঅ্যাবল