মেইন ম্যেনু

টাম্পাকোর শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ: দুইজনের মুখে দুই কথা

গাজীপুরের টঙ্গীর প্যাকেজিং কারখানা টাম্পাকো ফয়লসে আগুনে নিহত প্রত্যেকের পরিবার এবং আহতদের সরকার ক্ষতিপূরণ দেবে। তবে এই অংক কত হবে সে বিষয়ে শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু ও শ্রম পরিদপ্তরের পরিচালক এফ এম আশরাফুজ্জামান দুই ধরনের তথ্য দিয়েছেন।

দুপুরে দুর্ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, নিহতদের পরিবারকে এক লাখ টাকা করে এবং আহতদের ৫০ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে। আর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে শ্রম পরিদপ্তরের পরিচালক বলেছেন, নিহতদের পরিবার ক্ষতিপূরণ পাবে দুই লাখ টাকা করে। আর আহতরা পাবেন এক লাখ টাকা করে।

শ্রম আইন অনুযায়ী কারখানাতে দুর্ঘটনায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটলে শ্রমিকদেরকে ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়। আগে নিহতদের জন্য ক্ষতিপূরণ এক লাখ টাকা দেয়া হলেও সরকার সেই আইন সংশোধন করে ক্ষতিপূরণের অংক বাড়িয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘দুর্ঘটনা তদন্তে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কমিটি করা হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে কমিটিকে। যদি কারো বিরুদ্ধে গাফলতি পাওয়া যায় তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

কারখানার মালিকপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে কি না জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এখন পর্যন্ত তাদের কারো সাথে যোগাযোগ করা যায়নি।’

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম আলম জানান, দুর্ঘটনার জন্য ক্ষতিপূরণ ছাড়াও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতদের দাফনের জন্য ২০ হাজার টাকা ও আহতদের চিকিৎসা বাবদ ১০ হাজার টাকা দেয়া হবে।

ভোর পৌনে ৬টার দিকে টঙ্গীর বিসিক শিল্পনগরীর টাম্পাকো ফয়লসে আগুন লাগে। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ২১ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে ৩০ জনের মত। তাদের মধ্যে ২০ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এই হাসপাতালে আহতদেরকে দেখতে যান শ্রম পরিচালক এফ এম আশরাফুজ্জামান। এ সময় তিনি টাম্পাকোতে নিহতদের পরিবারকে দুই লাখ টাকা এবং আহতদের পরিবারকে এক লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার কথা বলেন।