মেইন ম্যেনু

টেকনাফে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর আঘাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

ফয়েজুল ইসলাম রানা, টেকনাফ : টেকনাফে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুরর আঘাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তৎমধ্যে সেন্টমার্টিন ইউনিয়নের মাত্রা সব চেয়ে বেশী বলে জানিয়েছে সে ইউনিয়নের নব নিবার্চিত চেয়ারম্যান নুর আহম্মদ। তিনি জানিয়েছেন, গত ২০মে দিবাগত রাত হতে ২১মে সকাল ১০টা পর্যন্ত একটানা সেন্টমার্টিনে ব্যাপক ঝড়োঁ হাওয়া, সেই সাথে বৃষ্টি হয়েছে। বাতাসের গতিবেগ ছিল প্রায় ঘন্টায় ১শ কিলোমিটারের উর্ধে। ফলে এলাকার কাচাঁ ঘর-বাড়ি, গাছ-পালা ও রাস্তা-ঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কিন্তু কোন প্রাণ হানির ঘটনা ঘটেনি বলে তিনি জানান। এদিকে সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীরদ্বীপেও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অত্র ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ্জ্ব হামিদুর রহমান জানিয়েছেন, পশ্চিম ও দক্ষিণ পাড়ার বেড়ীঁবাধ ভেঙ্গে জোয়ারের পানিতে অনেক ঘর-বাড়ি পানিতে তলিয়ে যায়। এছাড়া চিংড়িঘের, লবণ মাঠ ও ফসলী জমিতে লবণাক্ত পানিতে সয়লাব হয়ে পড়েছে। গত ২০মে হতে এ রির্পোট লিখা পর্যন্ত শাহপরীরদ্বীপের সাথে টেকনাফের যোগাযোগ সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। ফলে এলাকার লোকজনের দূর্ভোগ চরমে উঠেছে। অপরদিকে বাহারছড়া ইউনিয়নের নব নিবার্চিত চেয়ারম্যান মৌলভী আজিজ উদ্দীন জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর আঘাতে ইউনিয়নের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কাচাঁ ঘর-বাড়ি, গাছ-পালা উপড়ে পড়েছে। রাস্তা ঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তবে প্রাণ হানির কোন ঘটনা জানা যায়নি। অপরাপর ইউনিয়ন হোয়াইক্যং, হ্নীলা ও সদরে আংশিক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এদিকে পৌরসভায় ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে। বেড়ীবাধঁ ভেঙ্গে পড়েছে। রাস্তা-ঘাট, কাচাঁ ঘর-বাড়ি ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিদ্যুৎ বিহীন হয়ে পড়েছে গোটা উপজেলা। ফলে বিদ্যুৎ চালিত সকল প্রকার ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধ হয়ে পড়েছে। বিদ্যুৎ না থাকার কারনে মোবাইল নেটওয়ার্কে বিপর্যয় ঘটছে।