মেইন ম্যেনু

টেকনাফে ভোটার হালনাদের তথ্য সংগ্রহকারী ও সুপারভাইজারদের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন

চলতি মাসের ১৬ তারিখে টেকনাফ উপজেলায় ভোটার হালনাগাদের কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। যা ৩০ আগষ্ট পর্যন্ত চলবে। এ উপলক্ষে উপজেলা নির্বাচন অফিসের উদ্যোগে পাবলিক হল মিলনায়তনে গত ১১ আগষ্ট তথ্য সংগ্রহকারী ও সুপার ভাইজারদের দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে জেলা নির্বাচন অফিসার মিছবাহ উদ্দীন প্রধান অতিথি ও প্রধান প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। প্রশিক্ষণে ৭০ জন তথ্য সংগ্রহকারী ও ১৬ জন সুপারভাইজার প্রশিক্ষণে অংশ নেন। উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় ১৬জন সুপারভাইজার সুপারভাইজ করবে।

এরা হলেন হোয়াইক্যং ইউনিয়নে কানজর পাড়া হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম, নয়া বাজার হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক রুপন কন্তি বড়–য়া, একই স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক বাবু বিশ্বজিৎ মজুমদার। হ্নীলা ইউনিয়নে নয়া বাজার হাই স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক শামশুল আলম হায়দরী, নয়া বাজার হাই স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক বিপুল পাল, হ্নীলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক সুক্লব পাল।

সদর ইউনিয়নে টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক বাশিরাম দে, এজাহার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আজিজুল হক। সাবরাং ইউনিয়ে সাবরাং হাই স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক প্রবির কান্তি মজুমদার, একই স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক আনিসুর রহমান ও শাহপরীর দ্বীপ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শামশুল আলম। বাহার ছড়া ইউনিয়নে শামলাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুধান্ত কুমার দাস, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা সরওয়ার কাদের জয়। সেন্টমার্টিন ইউনিয়নে সেন্টমার্টিন বিএন ইসলামী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শাহ জালাল।

পৌরসভায় এজার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক জয়নাল আবেদীন ও টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক দীলিপ কুমার দাস।

ভোটার তালিকায় অন্তভূক্তির জন্য যে সমস্ত কাগজ পত্রের প্রয়োজন হবে তা হচ্ছে পিতা-মাতার আইডি কার্ডের ফটোকপি, পিতা-মাতা মৃত হলে মুত্যৃ সনদের ফটোকফি, স্ত্রী/স্বামীর আইডি কার্ডের ফটোকপি, জন্ম সনদের ফটোকপি, জাতীয়তা সনদের ফটোকপি, ইউলিটি এর ফটোকপি, পৌরকর/ইউুনয়ন পরিষদের খাজনার ফটোকপি, বিদেশ ফেরৎ হলে বৈধ পাসপোটের ফটোকপি, বসবাসের ক্ষেত্রে নিজ জমির মালিকানার খতিয়ানের ফটোকপি, নিকট আত্মীয়ের আইডি কার্ডের ফটোকপি, সর্বশেষ দুটি শিক্ষা প্রতিষ্টানের সনদের ফটোকপি ও বয়স্ক আবেদনকারীদের বাদ পড়ার কারন উল্লেখ করতঃ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের প্রত্যয়ন পত্র ইত্যাদি।