মেইন ম্যেনু

টেকনাফ ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের পক্ষ থেকে ওসিকে স্মারক লিপি প্রদান

টেকনাফ ডিগ্রী কলেজের অধ্যাপক শামশুল আলম হত্যার খুনিদের গ্রেফতারের দাবীতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের পক্ষ থেকে টেকনাফ মডেল থানার ওসিকে স্মারক লিপি প্রদান করেছে। গত ২৮নভেম্বর দুপুরে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান খোন্দকারের অফিস কার্যালয়ে এসে তার নিকট এ স্মারক লিপি প্রদান করা হয় বলে টেকনাফ ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শেখ জয়নাল আবেদীন জানান।

উল্লেখ্য যে, গত ৩১/১০/২০১৪ ইং তারিখে নিজ এলাকার কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও খুনী চক্রে হাতে নির্মম ভাবে নিহত হন টেকনাফ ডিগ্রী কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান অধ্যাপক শামশুল আলম।

খুনীদের অবিলম্বে বিচার ও গ্রেফতারের দাবীতে গত ২/১১/১৪ইং তারিখে মৃত অধ্যাপক শামশুল আলমের স্ত্রী দিলসাদ বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং (০৪)৬৩৫ দায়ের করেন।

কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্য যে, এ রির্পোট লিখা পর্যন্ত কোন চিহ্নিত খুনীকে গ্রেফতার করা হয়নি। ফলে খুনীরা প্রকাশ্যে দিবা-লোকে প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে। হত্যার এক বছর পার হলেও যেমনি খুনীদেরকে গ্রেফতার করা হয়নি তেমনি এখনো পর্যন্ত আদালতে র্চাজশীট দাখিল করা হয়নি। এতে খুনীরা আরও বেপোয়ারা হয়ে পড়েছে।

এ ধরনের একটি চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার আসামীদেরকে গ্রেফতার না করায় এলাকায় গুঞ্জন শুরু হয়েছে। কেন খুনীদেরকে গ্রেফতার করা হচ্ছেনা?

এলাকাবাসীর ও শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের প্রশ্ন। এ ব্যাপারে টেকনাফ ডিগ্রী কলেজের সকল শিক্ষক, শিক্ষিকা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীগণ অনতি বিলম্বে চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও খুনীদেরকে গ্রেফতার করে শাস্তি প্রদানের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, সচিব, আইজিপি, ডিআইজি, এসপি, এসপি সার্কেলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন এবং অনুলিপি প্রেরণ করেছেন।